বাংলা ফন্ট

বলিউডে আফগান কন্যা ওয়ারিনা

04-10-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 বলিউডে আফগান কন্যা ওয়ারিনা

ঢাকা: ‘সালমান খান আমার জীবনের মোড়টাই ঘুরিয়ে দিয়েছেন, তিনি আমাকে অনেক বড় সুযোগ দিয়েছেন। এখনো আমার কাছে সবকিছু স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে’—কথাগুলো ওয়ারিনা হুসেইনের। এ সপ্তাহে বলিউডে নায়িকা হিসেবে অভিষেক হচ্ছে তার। ‘লাভইয়াত্রি’ ছবিতে তাকে দেখা যাবে সালমান খানের ছোটবোন অর্পিতার স্বামী আয়ুশ শর্মার বিপরীতে। ছবিটিতে নায়ক হিসেবে আয়ুশও আত্মপ্রকাশ করছেন।
 
রোমান্টিক ড্রামা ধাঁচের ছবিটি প্রযোজনা করেছেন সালমান খান। এ ছবিতে একটি গানের দৃশ্যেও তাকে দেখা যাবে। শুরুতে ছবির নাম ‘লাভরাত্রি’ থাকলেও এ নিয়ে বিতর্ক ও সমালোচনার ঝড় সৃষ্টি হলে তা বদলে ‘লাভইয়াত্রি’ রাখা হয়েছে। সালমান খানের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে তার ভগ্নীপতি আয়ুশ শর্মা রুপালি পর্দায় নায়ক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছেন গত বেশ কিছুদিন থেকে শোনা যাচ্ছিল। আয়ুশের বিপরীতে নায়িকা কে হবেন, তা নিয়েও জল্পনাকল্পনা ছিল বলিউডে। একসময় আয়ুশের সম্ভাব্য নায়িকা হিসেবে ক্যাটরিনা কাইফের নামও আলোচনায় আসে। তবে শেষ পর্যন্ত নতুন মুখ ওয়ারিনা হুসেইনকে বেছে নিয়েছে নায়িকা হিসেবে।
 
ওয়ারিনার জন্ম কাবুলে। সাত বছর আগে ভারতে পা রাখেন এই আফগান-কন্যা। সুন্দরী এই তরুণী মডেল হিসেবে কাজ শুরু করলেও তার স্বপ্ন ছিল বলিউডকে ঘিরে। অনেক প্রযোজক-পরিচালকের কাছে ধর্না দিয়েছেন সুযোগের প্রত্যাশায়। অনেকে কথা দিয়েও শেষ পর্যন্ত তা রাখেননি। তার হিন্দি উচ্চারণও ঠিক হয় না, এমন অজুহাতও শুনতে হয়েছে ওয়ারিনাকে। ‘আমি সালমান খানের প্রযোজিত সিনেমায় নায়িকা হবো ভাবিনি কখনো। কিন্তু তিনি আমাকে তার বাড়িতে ডেকে পাঠিয়েছিলেন। ভীষণ নার্ভাসবোধ করছিলাম, সিনেমা জগৎ সম্পর্কে আমার কোনো পূর্ব ধারণা ছিল না বলতে এখানে আমি অচেনা এক আগন্তুক, কিন্তু সালমান খান আন্তরিকভাবে আমাকে সবকিছু বুঝিয়ে দিয়েছেন, সহজ-সরলভাবে কথা বলেছেন। সবসময় এক ধরনের সহযোগী মনোভাব প্রদর্শন করেছেন, যা আমাকে আত্মবিশ্বাসী ও সাহসী করেছে,’ নিজের বলিউডে পা রাখার প্রেক্ষাপট বর্ণনা করতে গিয়ে কথাগুলো বলেন ওয়ারিনা।
 
‘লাভইয়াত্রি’ সিনেমার গল্প আবর্তিত হয়েছে এক জোড়া তরুণ-তরুণীর রোমান্টিক জার্নিকে কেন্দ্র করে। এখানে ওয়ারিনাকে দেখা যাবে বিদেশ থেকে দেশে বেড়াতে আসা এক সুন্দরী তরুণী মিশেলের চরিত্রে। নবরাত্রি উৎসবের অনুষ্ঠানে তার সঙ্গে দেখা হয় এক যুবকের। তার সাথে গভীর প্রণয়ে জড়িয়ে পড়ে মেয়েটি। এরপর নানা ঘাত-প্রতিঘাত বাধাবিপত্তির মুখোমুখি হতে হয় তাদের, অবশেষে তাদের মিলন হয়।
 
দর্শক-বিনোদনের নানা উপাদানে সমৃদ্ধ ‘লাভইয়াত্রি’ ছবিতে নতুন হিসেবে ওয়ারিনা হুসেইন অনেক ভালো করেছেন। এরমধ্যে ছবিটির গান ও ট্রেলার দেখে দর্শক তার প্রতি কৌতূহলী হয়ে উঠেছেন। সালমান খান তার আবিষ্কারক হিসেবেও অনেকটা আশাবাদী ওয়ারিনাকে নিয়ে। এর আগে অনেক নতুন নায়িকার আগমন ঘটেছে বলিউডে তার মাধ্যমে। ক্যাটরিনা কাইফ, স্নেহা উল্লাল, জেরিন খান, সোনাক্ষি সিনহা, ডেইজি শাহ, আতিয়া শেঠি প্রমুখ সালমান খানের আবিষ্কার হিসেবে বলিউডে পরিচিতি পেয়েছেন। তাদের দলে নতুন সামিল হওয়া ওয়ারিনা তার প্রথম অভিনীত সিনেমা ‘লাভইয়াত্রি’ নিয়ে অনেকটাই আশাবাদী। এ ছবির প্রচারে যেখানেই গেছেন, সেখানে পেয়েছেন দর্শকদের শুভেচ্ছা। সবাই তাকে কাছে পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। সালমান খানের প্রতি কৃতজ্ঞতার শেষ নেই ওয়ারিনার।
 
এ প্রসঙ্গে আফগান-কন্যাটি বলেন, ‘তিনি আমার রিয়েল লাইফ হিরো। ছোটবেলা থেকেই তার সিনেমা দেখে দেখে বড় হয়েছি। তার হাত ধরে চলচ্চিত্র আমার অভিষেক হবে স্বপ্নেও ভাবিনি। আমি অনেক সৌভাগ্যবান, সালমান খান এত বড় একটি প্রজেক্টে আমাকে প্রধান নায়িকা হিসেবে অভিনয়ের সুযোগ করে দিয়েছেন। আমার কাছে কাজটি অনেক দায়িত্বপূর্ণ মনে হয়েছে। সালমান খান আমার ব্যাপারে সব সময়েই আন্তরিক ছিলেন। তার চমৎকার ব্যবহার আমাকে মুগ্ধ করেছে, আমি তার প্রতি কৃতজ্ঞ।’
সালমান খান নিজেও ওয়ারিনার কাজে বেশ সন্তুষ্ট। তার ধারণা ও প্রত্যাশা ‘লাভইয়াত্রি’ ছবিটি বক্স অফিসে ভালো ফলাফল করবে, যার সুবাদে বলিউডে ওয়ারিনার ভালো একটি অবস্থান তৈরি হয়ে যাবে। এখন দেখা যাক, আফগান-কন্যাটি শুরুতে কতটা চমক সৃষ্টি করতে পারেন।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল

সর্বশেষ সংবাদ