বাংলা ফন্ট

প্রধান বিচারপতি নিয়োগ সংক্রান্ত রিট খারিজ

28-01-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 প্রধান বিচারপতি নিয়োগ সংক্রান্ত রিট খারিজ
ঢাকা: প্রধান বিচারপতি নিয়োগ নিয়ে হাইকোর্টে করা রিট উপস্থাপিত হয়নি এইমর্মে খারিজ করে দিয়েছে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ।

রবিবার দুপুরে বিচারপতি জিনাত আরা ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাইকোর্ট বেঞ্চে মোশন শুনানির পর এই আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ইসরাত জাহান। পরে তিনি সাংবাদিকদের জানান, রিটকারী আইনজীবী শুনানির সময় উপস্থিত না থাকায় আদালত সেটি খারিজ করে দিয়েছেন।

এর আগে আবেদনকারী আইনজীবী মো.ইউনুছ আলী লিখিত এক বক্তব্যে সাংবাদিকদের জানান, গত ৩ জানুয়ারি রিট আবেদনটি করা হয়। পরে মোশন শুনানির জন্য হাইকোর্টের চারটি বেঞ্চে উপস্থাপন করা হলেও কোনো কোর্টই শুনানির জন্য রাজি হননি। সর্বশেষ বিচারপতি জিনাত আরা ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাইকোর্ট বেঞ্চ মোশন শুনানির জন্য রাজি হন।

আইনজীবীদের মধ্যে থেকে আপিল বিভাগে সরাসরি বিচারক নিয়োগ এবং প্রধান বিচারপতির শূন্যপদে নিয়োগের নির্দেশনা গত বছরের ১৭ই ডিসেম্বর মন্ত্রী পরিষদ সচিব, আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলসহ সংশ্লিষ্টদের আইনি নোটিশ পাঠিয়েছিলেন আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ।

প্রধান বিচারপতির পদ শূণ্য থাকা এবং নতুন প্রধান বিচারপতি নিয়োগ না দেওয়া কেন অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না এবং সংবিধানের ৯৫ অনুচ্ছেদ অনুসারে আইনজীবী থেকে প্রধান বিচারপতিসহ বিচারপতি নিয়োগের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, মর্মে রুল জারির নির্দেশনা চেয়ে এ রিট করেন তিনি। আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দের ওই রিট আবেদন এর আগে হাইকোর্টের চারটি বেঞ্চে প্রত্যাখ্যাত হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২ অক্টোবর রাতে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার এক মাসের ছুটির কারণে বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞাকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে আইন মন্ত্রণালয়। পরে ছুটির বিষয়টি আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ও অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন। সেই থেকে পদটি শূন্য আছে। তার মেয়াদ শেষ হবে আগামী ৩১ জানুয়ারি। অবশ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি হিসেবে কার্যক্রম চালিয়ে নিচ্ছেন বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞা।

এরপর নানা নাটকীয়তার পর প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা ১৩ অক্টোবর রাতে অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন। যাওনার পথে হেয়ার রোডের বাসভবনের সামনে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি অসুস্থ না। আমি পালিয়ে যাচ্ছি না। বিচার বিভাগের স্বার্থে আমি স্বেচ্ছায় বিদেশ যাচ্ছি। আবার ফিরে আসব। প্রধানমন্ত্রীকে ভুল বোঝানো হয়েছে।’

এ সময় সাংবাদিকদের দেওয়া এক লিখিত বক্তব্যে এসকে সিনহা বলেন, ‘আমি সম্পূর্ণ সুস্থ আছি। কিন্তু ইদানিং একটা রায় নিয়ে রাজনৈতিক মহল, আইনজীবী, বিশেষভাবে সরকারের মাননীয় কয়েকজন মন্ত্রী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে ব্যক্তিগতভাবে যেভাবে সমালোচনা করেছেন, এতে আমি সত্যিই বিব্রত।’

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল




সর্বশেষ সংবাদ