বাংলা ফন্ট

যুক্তরাষ্ট্রকে এরদোগানের হুমকি

15-02-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

  যুক্তরাষ্ট্রকে এরদোগানের হুমকি
আঙ্কারা: উত্তর সিরিয়ায় কুর্দি ওয়াইপিজি যোদ্ধাদের জন্য মার্কিন সমর্থনের কড়া সমালোচনা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান।

তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, গ্রুপটিকে অর্থায়নের জন্য ওয়াশিংটনের পদক্ষেপ আঙ্কারার ভবিষ্যতের সিদ্ধান্তে ন্যাটোর এই মিত্রকে প্রভাবিত করবে।

মঙ্গলবার আঙ্কায়ায় অনুষ্ঠিত এক অনুষ্ঠানে এরদোগান যুক্তরাষ্ট্রকে এই হুমকি দেন।

এরদোগান বলেন, ‘ওয়াইপিজিকে আর্থিক সহায়তার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্ত ভবিষ্যতে তুরস্কের সিদ্ধান্তকে নিশ্চিতভাবেই প্রভাবিত করবে।’

তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র আজকে যে সন্ত্রাসীদের পক্ষ নিয়েছে, তা থেকে তাদের সরে আসাটা তাদের জন্য ভাল হবে। আমি যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের উদ্দেশ্যে বলছি- সন্ত্রাসীদের জন্য এই অর্থ মার্কিন বাজেটের বাইরে থেকে আসছে। এটা সম্পূর্ণই জনগণের পকেট থেকে কাটা হচ্ছে।’

এরদোগানের এই মন্তব্য ছিল পেন্টাগনের নতুন প্রতিরক্ষা বাজেটের একটি প্রতিক্রিয়া। নতুন এই বাজেটে সিরিয়ায় সামরিক কর্মকাণ্ডের জন্য ৫৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

বাজেটর একটি কপির তথ্যানুযায়ী, মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ সিরিয়ায় প্রশিক্ষণ ও সজ্জিতকরণ কার্যক্রমের জন্য ৩০০ মিলিয়ন ডলার এবং আইএস মিশন সম্পর্কিত সীমান্ত নিরাপত্তা প্রয়োজনীয়তার জন্য ২৫০ ডলারের জন্য অনুরোধ করে।

তুরস্ক তার সীমান্ত থেকে ওয়াইপিজি যোদ্ধাদের নির্মূল করতে গত মাসে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় সিরিয়ায় কুর্দি অধ্যূষিত আফরিন অঞ্চলে ‘অপারেশন অলিভ ব্রাঞ্চ’ নামে সামরিক অভিযান পরিচালনা করছে।

শীর্ষস্থানীয় তুর্কি কর্মকর্তারা তাদের এই সামরিক অভিযান সিরিয়ার আরেক শহর ম্যানবিজের দিকে সম্প্রসারণের হুমকি দিয়েছে। একই সঙ্গে সেখানে অবস্থানরত মার্কিন সৈন্যদের সরিয়ে নেয়ার জন্যও তুর্কি কর্মকর্তারা সতর্ক করে দিয়েছিল।শহরটি ওয়াইপিজির নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্স (এসডিএফ) -এর নিয়ন্ত্রণাধীন।

যুক্তরাষ্ট্র ইতোমধ্যে স্পষ্ট করে বলে দিয়েছে যে, ম্যানবিজ থেকে তার সৈন্য বাহিনী প্রত্যাহারের কোনো পরিকল্পনা দেশটির নেই।

সিরিয়া ও ইরাকে মার্কিন বাহিনীর কমান্ডার পল ফাঙ্ক সম্প্রতি ম্যানবিজ সফর করেছেন এবং হুমকি দিয়ে বলেছেন যে যদি সিরিয়াতে যুক্তরাষ্ট্র ও তার সহযোগীদের ওপর আক্রমণ করা হয় তবে, তার পাল্টা জবাব দেয়া হবে।

ফাঙ্ক বলেন, ‘আপনি আমাদের আঘাত করলে আমরাও আক্রমনাত্মকভাবে তার জবাব দিব। আমরা নিজেদের রক্ষা করব।’

জবাবে এরদোগান বলেন, ‘যারা বলে থাকেন যে তারা যদি আঘাতপ্রাপ্ত হয় তাহলে তার তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখাবে। আমি তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, স্পষ্টতই তারা কখনো অটোমানদের থাপ্পর (অটোমান স্ল্যাপ) খায়নি।’

‘অটোমান স্ল্যাপ’ হচ্ছে ১৭ শতকের অটোমান সাম্রাজ্যের অভিজাত সৈন্যবাহিনীর মারাত্মক মার্শাল আর্টের একটি কৌশল।

এদিকে, সিরিয়ার মার্কিন সৈন্যদের ‘অটোমান স্ল্যাপ’ এর জন্য এরদোগানের হুমকিকে ‘মজাদার’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র হীথ নুরেত।

এই হুমকি সম্পর্কে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের হেসে তিনি বলেন, ‘অটোমান স্ল্যাপের অভিজ্ঞতা যুক্তরাষ্ট্রের কি কখনো হয়েছে? এটা সত্যিই মজাদার। আমি প্রতিটি বিদেশি নেতার মন্তব্য সম্পর্কে এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে চাচ্ছি না।’

সূত্র: আল জাজিরা, আহবাল ডটকম

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল

সর্বশেষ সংবাদ