বাংলা ফন্ট

ব্রেক্সিট চুক্তির খসড়ায় ইইউ ও যুক্তরাজ্য একমত

14-11-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 ব্রেক্সিট চুক্তির খসড়ায় ইইউ ও যুক্তরাজ্য একমত

ঢাকা: কয়েক মাসের আলাপ-আলোচনার পর ব্রেক্সিট চুক্তির একটি খসড়ায় সম্মত হয়েছে যুক্তরাজ্য এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

মন্ত্রীসভার একটি সূত্র বিবিসিকে জানিয়েছে যে, খসড়া নিয়ে দুই পক্ষের কারিগরি পর্যায়ে কর্মকর্তারা একমত হয়েছেন।

সপ্তাহ জুড়ে এই চুক্তির খসড়া নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা চলছিল। মন্ত্রীসভার সমর্থন চাইতে বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টায় বিশেষ বৈঠক আহ্বান করেছেন প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে।

এর আগে ডাউনিং স্ট্রীটে প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রীসভার প্রত্যেক সদস্যের সঙ্গে আলাদা করে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী মে।

ব্রেক্সিট চুক্তির খসড়ায় ঐক্যমত হয়েছে এই খবরে ইতিমধ্যেই ডলার ও ইউরোর বিপরীতে পাউন্ডের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে।

যদিও বিশ্লেষকেরা বলছেন, যেহেতু পার্লামেন্ট ও মন্ত্রীসভা এখনো এই খসড়া অনুমোদন করেনি, ফলে মুদ্রার এই ঊর্ধ্বগতি দীর্ঘস্থায়ী নাও হতে পারে।

এদিকে, ইইউ জানিয়েছে, তারা বুধবারের ঘটনাবলীর দিকে লক্ষ্য রাখবে। কিন্তু আইরিশ সরকার বলছে, আলোচনা এখনো শেষ হয়নি। ব্রেক্সিটের

ব্রেক্সিট ইস্যুতে পদত্যাগ করা মন্ত্রী, যেমন বোরিস জনসন এবং জেকব রিস-মগ ইতিমধ্যেই খসড়া চুক্তির সমালোচনা করে বলেছেন, খসড়া মানতে গেলে যুক্তরাজ্য ইইউ এর নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

বিরোধীরা চুক্তির খসড়া প্রত্যাখ্যান করতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

যুক্তরাজ্য এবং ইইউ নভেম্বরের শেষ নাগাদ ইউরোপীয় নেতৃবৃন্দের একটি বিশেষ সম্মেলন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।
কোন কোন বিষয়ে একমত দুই পক্ষ?

খসড়া চুক্তির বিস্তারিত এখনো প্রকাশ করা হয়নি। তবে ৫০০ পৃষ্ঠার এই দলিলে মোটাদাগে ভবিষ্যতে ইইউ এর সঙ্গে যুক্তরাজ্যের সম্পর্কের ধরণ কেমন হবে সে বিষয়ে আলোকপাত করা হয়েছে।

একই সঙ্গে উত্তর আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে সীমান্তে কোন রকম তল্লাশি চালানো হবে না এমন নিশ্চয়তার বিধান রাখা হয়েছে।

অনেকে মনে করেন, ইইউ এর বাণিজ্য বিষয়ক নিয়মনীতির ফলে যুক্তরাজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

চুক্তিতে ব্রেক্সিটের পর ২০১৯ সালের ২৯শে মার্চ যুক্তরাজ্য যখন বেরিয়ে যাবে, তখন দেশটির নাগরিকদের অধিকার সম্পর্কে বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি এতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

ইইউ কী বলছে?

এখনো পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক কোন প্রতিক্রিয়া জানায়নি ইইউ। অনানুষ্ঠানিকভাবে কর্মকর্তারা বিবিসিকে জানিয়েছেন, এখনো পর্যন্ত কোন চুক্তি হয়নি, এটি কেবলই একটি খসড়া যা নিয়ে টেকনিক্যাল বা কারিগরি পর্যায়ের কর্মকর্তা একমত হয়েছে।

ব্রিটিশ মন্ত্রীরা যদি আজকের বৈঠকে এতে সম্মতি না দেন, তাহলে তো সেটি আবারো আলোচনার টেবিলেই ফিরে যাবে।

তবে, যদি ব্রিটিশ মন্ত্রীসভা এটি অনুমোদন করে, তাহলে ২৭জন ইউরোপীয় রাষ্ট্রদূত আগামী কাল বৈঠক করবেন।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল


সর্বশেষ সংবাদ