বাংলা ফন্ট

বিরোধীতায়ও এক ভোট আমেরিকার

02-06-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 বিরোধীতায়ও এক ভোট আমেরিকার
     

নিউইয়র্ক: জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে (ইউএনএসসি) ফিলিস্তিনের জনগনের জন্য আর্ন্তজাতিক সুরক্ষা প্রস্তাবে ভেটো দিয়ে মাত্র এক ভোট পেয়েছে বিশ্ব মোড়ল আমেরিকা। নিরাপত্তা পরিষদে ফিলিস্তিনি বেসামরিক জনগণের জন্য আন্তর্জাতিক সুরক্ষার প্রস্তাবটি করেছে উপসাগরীয় দেশ কুয়েত।
এর আগে ইসরাইলের সুরক্ষা দাবি করে পাল্টা এক প্রস্তাব দিয়েছিল আমেরিকা। ওই প্রস্তাবেও তারা শুধুমাত্র নিজেদের ভোটই পেয়েছে। যদিও ওই প্রস্তাবে বেশিরভাগ দেশ ভোটদান থেকে বিরত ছিল। আমেরিকা ছাড়া যারাই ভোট দিয়েছে তারা ইসলাইলের বিপক্ষে দিয়েছে।
পরে ফিলিস্তিনের পক্ষে প্রস্তাব দেন কুয়েত। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাবটি ভোটে দেওয়া হয়। এতে ১১ টি রাষ্ট্র ভোট দিয়েছে। বিরত ছিল মাত্র ৪ টি দেশ। এতে যুক্তরাষ্ট্রই একমাত্র দেশ যারা এই প্রস্তাবে ভেটো দিয়েছে। পক্ষে ১০টি ভোট পড়েছে, বিরত ছিল চার দেশ।
প্রস্তাবে জাতিসংঘের কুয়েতের প্রতিনিধি বলেন, কেনো একটি দখলদার বাহিনী নিয়মবহির্ভূত সুবিধা পাবে? ফিলিস্তিনিরা কেনো অব্যাহত নির্যাতন সহ্য করে যাবে। কেনো আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এ নিপীড়নের বিরুদ্ধে কিছু করতে ব্যর্থ হচ্ছে? কেনো সেখানে এত জীবন ক্ষয় ও রক্তপাত ঘটছে?
কুয়েতের প্রস্তাবে আরো বলা হয়, ফিলিস্তিনি নিরপরাধ মানুষের বিরুদ্ধে ইসরাইলি সেনাবাহিনীর অতিরিক্ত, বৈষম্যমূলক ও নির্বিচার বলপ্রয়োগের অভিযোগ করা হয়েছে। কুয়েত এ বৈষম্যমূলক নিপীড়নের অবসান ঘটিয়ে ফিলিস্তিনের সাধারণ মানুষের সুরক্ষা দাবি করেছে।
এই প্রস্তাবের বিরোধীতা করে ভেটো দেন আমেরিকা। ইসরাইলের পক্ষে অবস্থান নেওয়া আমেরিকা এই প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দেন। জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিক্কি হ্যালি এক ভাষণে এই প্রস্তাবের সমালোচনা করে এটাকে একপাক্ষিক স্থূল দৃষ্টিভঙ্গি বলে আখ্যায়িত করেছেন।
গত মাস দুয়েক ধরে চলা ফিলিস্তিনিদের বসতবাড়িতে ফেরার বিক্ষোভে এ পর্যন্ত ১২৩ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কয়েক হাজার বেসামরিক নাগরিক।
গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি হত্যকাণ্ডের সবসময় সমর্থন জানিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল


সর্বশেষ সংবাদ