বাংলা ফন্ট

সিরিয়ার বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপ নিতে পারেন ট্রাম্প?

10-04-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 সিরিয়ার বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপ নিতে পারেন ট্রাম্প?
ঢাকা: সিরিয়ার দুমায় কথিত রাসায়নিক অস্ত্র হামলার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, বাশার আসাদকে এ জন্য কঠোর মূল্য দিতে হবে এবং তিনি কোন বিকল্পই বিবেচনার বাইরে রাখছেন না। কিন্তু কী কী করতে পারেন তিনি?

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের হাতে বেশ কিছু বিকল্প রয়েছে। তবে প্রত্যেকটিরই নিজস্ব কিছু অসুবিধাও রয়েছে।

একটি হচ্ছে কূটনৈতিক পন্থা।

জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেছেন, বাশার আসাদের সামরিক ক্ষমতার পেছনে রাশিয়া ও ইরানের ভুমিকাকে যুক্তরাষ্ট্র উপেক্ষা করতে পারে না।

সুতরাং নিষেধাজ্ঞা আরোপের মতো কোন পদক্ষেপ যদি নেয়া হয় তাহলে শুরু সিরিয়া নয় রাশিয়া ও ইরানও এর আওতায় পড়তে পারে।

তা ছাড়া জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের দলটি চেষ্টা করছে একটি আন্তর্জাতিক দল গঠনের - যারা রাসায়নিক অস্ত্র আক্রমণের তদন্ত করবেন। তবে রাশিয়া এরকম কোন প্রস্তাব আটকে দেয়ার চেষ্টা করবে। এই প্যানেল কাউকে দোষী বলে চিহ্নিত করুক এটা তারা চায় না।

রাশিয়া বলেছে, সামরিক বিশেষজ্ঞরা দুমায় বেসামরিক লোকদের ওপর কোন ক্লোরিন বা রাসায়নিক অস্ত্র হামলার প্রমাণ পান নি।

সমস্যা হলো তদন্তকারীরা যদি সিরিয়ান শাসকদের রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের প্রমাণ পেয়েও যান, তাহলেও নিরাপত্তা পরিষদ হয়তো কিছুই করতে পারবে না, তারা এতটাই বিভক্ত।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দ্বিতীয় বিকল্প হচ্ছে: সীমিত পর্যায়ের সামরিক আঘাত।

ডোনাল্ড ট্রাম্প ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন, তিনি এ বিষয়ে সামরিক বাহিনীর সাথে কথা বলছেন।

এখন থেকে ঠিক এক বছর আগে যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ার একটি বিমানঘাঁটিতে ক্রুজ মিসাইল হামলা চালিয়েছিল - যুক্তরাষ্ট্রের

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল

সর্বশেষ সংবাদ