বাংলা ফন্ট

শ্রীলঙ্কাসহ বিভিন্ন দেশের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের জিএসপি বাতিল

31-12-2017
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 শ্রীলঙ্কাসহ বিভিন্ন দেশের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের জিএসপি বাতিল
কলম্বো: যুক্তরাষ্ট্র তার বৈশ্বিক অগ্রাধিকারমূলক শুল্কব্যবস্থার (জিএসপি) আওতায় শ্রীলঙ্কাকে বহাল রাখতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। এর ফলে ৩১ ডিসেম্বরের পর শ্রীলঙ্কার রপ্তানিতে মিশ্র প্রভাব পড়তে পারে। তৈরী পোশাকের মতো গুরুত্বপূর্ণ খাতে তা তেমন প্রভাব না ফেললেও প্লাস্টিকের মতো খাতে তা বেশ বড় ধরনের সমস্যা সৃষ্টি করবে দ্বীপ দেশটির জন্য।

যুক্তরাষ্ট্র যদিও শ্রীলঙ্কার রপ্তানির একক বৃহত্তম বাজার, তার পরও ওয়াশিংটনের জিএসপি কর্মসূচি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের জিএসপি+ থেকে ভিন্ন। ইউরোপিয়ান বাজার শ্রীলঙ্কার রপ্তানির জন্য অনেক বেশি প্রভাব সৃষ্টি করে।

মার্কিন দূতাবাস এক বিবৃতিতে শ্রীলঙ্কাকে জিএসপি সুবিধা বহাল না রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এতে উল্লেখ করা হয়, শ্রীলঙ্কার শীর্ষ রপ্তানি বাজার হতে পেরে যুক্তরাষ্ট্র গর্বিত। ২০১৬ সালে য্কুতরাষ্ট্রে প্রায় ২.৮ বিলিয়ন ডলারের শ্রীলঙ্কান পণ্য রপ্তানি হয়েছিল।

অবশ্য জিএসপি বাতিলের ফলে শ্রীলঙ্কার রপ্তানিতে প্রভাব পড়বে প্রান্তিক। জানিয়েছেন সিলন চেম্বার অব কমার্সের প্রধান অর্থনীতিবিদ শিরান ফারনান্ডো।

তিনি ডেইলি এফটিকে বলেন, তৈরী পোশাক, চা, বস্ত্র ও রাবার রপ্তানিতে জিএসপি কর্মসূচি কোনো প্রভাব ফেলবে না। জিএসপি সুবিধায় যুক্তরাষ্ট্রে রপ্তানি পণ্যের পরিমাণ ছিল খুবই কম। এসব পণ্য এখন মার্কিন বাজারে তীব্র প্রতিযোগিতায় পড়বে।

তিনি বলেন, ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রে মোট ২.৮ বিলিয়ন ডলার মূল্যের পণ্য সরবরাহ করা হয়েছিল। এর মধ্যে তৈরী পোশাক ছিল ৭৫ ভাগ। ইউএস ট্রেড রিপ্রেজেনটেটিভের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৬ সালে জিএসপি কর্মসূচির আওতায় রপ্তানি পণ্যের মূল্য ছিল ১৭৩ মিলিয়ন ডলার। শ্রীলঙ্কাসহ ১২০টি দেশের জিএসপি বাতিল করায় মার্কিন বাজারে রপ্তানিকারকদের জন্য সমান সুযোগের সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, অতীতেও কয়েক বছরের জন্য জিএসপি সুবিধা ছিল না।

এদিকে শ্রীলঙ্কান ন্যাশনাল চেম্বার অব এক্সপোর্টার সভাপতি রমাল জসিঙ্গে বলেন, জিএসপি সুবিধা না থাকলে প্লাস্টিকের মতো সামগ্রী রপ্তানি বাধাগ্রস্ত হবে।

তিনি বলেন, জিএসপি কর্মসূচির আওতায় শ্রীলঙ্কা থেকে প্রায় ৩,৪৫১ ধরনের পণ্য শুল্কমুক্ত সুবিধায় মার্কিন বাজারে প্রবেশ করত। এগুলো বেশির ভাগই তৈরী সরঞ্জাম। এছাড়া অলংকার, কার্পেট, কিছু কৃষি ও মৎস্যজাত পণ্যও ছিল।

শ্রীলঙ্কার বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, জিএসপি সুবিধা না থাকলেও মার্কিন বাজারে রপ্তানি খুব বেশি প্রভাবিত হবে না। তবে মোট জাতীয় রপ্তানিতে কিছুটা তো প্রভাব পড়বেই।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল


সর্বশেষ সংবাদ