বাংলা ফন্ট

আল-আকসা সঙ্কট নিয়ে তুরস্ক-ইসরাইলের মধ্যে উত্তেজনা

29-07-2017
ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 আল-আকসা সঙ্কট নিয়ে তুরস্ক-ইসরাইলের মধ্যে উত্তেজনা
আঙ্কারা: পূর্ব জেরুজালেমে অবস্থিত মুসলমানদের প্রথম কেবলা মসজিদে আল-আকসা সঙ্কট নিয়ে আঙ্কারা ও তেল আবিবের মধ্যে নতুন উত্তেজনা বিরাজ করছে। দু’পক্ষ এ নিয়ে বাক-বিতন্ডায় লিপ্ত হয়েছে।

দুইদিন আগে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান জেরুজালেমে অবস্থিত মুসলিমদের তৃতীয় পবিত্রস্থান আল আকসা মসজিদকে রক্ষা করার জন্য মুসলিমদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান। এরদোগান বলেন, ‘আমাদের হৃদয়ের অর্ধেকটা মক্কা, অর্ধেকটা মদিনা আর আল-কুদস (জেরুজালেম) হৃদয়ের পাতলা আবরণ যা মক্কা-মদিনাকে জালের মত জড়িয়ে রেখে অলঙ্কৃত করেছে। আমাদের সবার উচিত আল-কুদস (জেরুজালেম) রক্ষা করা।  আসুন আমরা যেভাবে মক্কা ও মদিনাকে রক্ষা করি, সেভাবে আল-কুদসকে রক্ষা করবো’।

প্রেসিডেন্ট এরদোগান ইসরাইলের সাম্প্রতিক আগ্রাসী কর্মকান্ডের তীব্র সমালোচনা করে বলেন, অটোমান সাম্রাজ্যের অধীনে এ অঞ্চলের সবাই নিজ নিজ ধর্ম স্বাধীনভাবে করতে পারতো। কিন্তু ইসরাইল মুসলিমদের ধর্মীয় স্বাধীনতা কেড়ে নিয়েছে।

প্রেসিডেন্ট এরদোগান  আরো বলেন, ‘এটা সবাই জানে ইসরাইল আল-আকসা মসজিদের উপর যে বিধিনিষেধ আরোপ করেছে তা নিরাপত্তাজনিত কারণে নয় বরং দখল করার জন্য’।

এছাড়া তুরস্ক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘অটোমান যুগে, বিভিন্ন ধর্ম ও সম্প্রদায়ের লোকজন শান্তিপূর্ণভাবে সহাবস্থানে করত এবং শত শত বছর তারা স্বাধীনভাবে নিজ নিজ ধর্ম  পালন করত। এ সম্পর্কে ইহুদীদের ভাল জানার কথা এবং ইহুদীদের উচিত অটোমানদের অনন্য সহনশীলতার প্রশংসা করা’।

বুধবার ইসরাইল কর্তৃপক্ষ প্রেসিডেন্ট এরদোগানের  তীব্র সমালোচনা করে বলেন, ‘অটোমান সাম্রাজ্যের দিন শেষ। জেরুজালেম ইসরাইলের রাজধানী ছিল, আছে এবং থাকবে।’

এছাড়া তারা অভিযোগ করেন যে, তুরস্ক উত্তর সাইপ্রাস দখল করে রেখেছে এবং কুর্দিদের বিরুদ্ধে মানবতা বিরোধী কাজে লিপ্ত আছে।

এ ধরনের ইসরাইলি সমালোচনার জবাবে বৃহস্পতিবার  তুর্কি প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র বলেন, ‘আমাদের একটি গর্বিত ইতিহাস আছে। অটোমান সাম্রাজ্যের অধীনে সকল ধর্মের মানুষ স্বাধীনভাবে নিজ নিজ ধর্ম করতে পারতো এবং সেখানে কোনো শ্রেণী বৈষম্য ছিল না’।

তিনি আরো বলেন, ‘যারা (ইসরাইল) আমাদের ইতিহাস নিয়ে সমালোচনা করে তাদের উচিত তুর্কি ইতিহাস ভালভাবে পড়া’।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি আল-আকসা মসজিদের দরজায় ইসরাইলি বাহিনী মেটাল ডিটেক্টর এবং ক্যামেরা ব্যবহারসহ নতুন নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে। এছাড়া ইসরাইলি বাহিনীর হামলায় বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনি নিহত এবং শতাধিক আহত হয়।

এ ঘটনায় ক্ষুদ্ধ প্রেসিডেন্ট এরদোগান মঙ্গলবার ইসরাইলি কর্মকান্ডের তীব্র সমালোচনা করেন এবং আল-আকসা মসজিদকে রক্ষা করার জন্য বিশ্বের সকল মুসলিমদেরকে আহ্বান জানান।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইচএমএল


সর্বশেষ সংবাদ