বাংলা ফন্ট

ছাত্রলীগের স্কুল কমিটির বিরোধিতায় ওবায়দুল

23-12-2017
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 ছাত্রলীগের স্কুল কমিটির বিরোধিতায় ওবায়দুল
ঢাকা:  সারা দেশে স্কুল পর্যায়ে ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের বিরোধিতা করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ছাত্রলীগের সাবেক এই সভাপতি স্কুলের শিক্ষার্থীদের বই-পুস্তকের পরিবর্তে ‘রাজনীতির বোঝা’ দেওয়ায় সংগঠনটির বর্তমান নেতাদের সমালোচনাও করেছেন।

গত ২২ নভেম্বর ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সারা দেশে স্কুল পর্যায়ে কমিটি করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

ছাত্রলীগের এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা আসে বিএনপির তরফ থেকে। তারা বলছে, স্কুল কমিটি করার মধ্যে দিয়ে শিক্ষার্থীদের হানাহানিতে জড়ানো হচ্ছে।

শনিবার বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে ছাত্রলীগ আয়োজিত বিজয় দিবস ও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও ছাত্রলীগের স্কুল কমিটির সমালোচনা করেন।

তিনি বলেন, “সব বিষয়ে আলোচনা করা ভালো। ছাত্রলীগের স্কুল কমিটি ধারণাটি ঠিক না। এই মুহূর্তে একটি সমালোচনা ডেকে আনার দরকার নেই। স্কুল কমিটির উদ্যোগ নেওয়ার পর থেকে সমালোচনা শুরু হয়ে গেছে।

“এমনিতেই ছেলেমেয়েদের পিঠে বই-পুস্তকের বোঝা, তার উপর রাজনীতির বোঝা চাপানোর দরকার নেই।”

তিনি কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ছাত্রলীগকে আরও পরিশীলিত হওয়ারও আহ্বান জানান।

“কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ছাত্র রাজনীতি থাকতে পারে। এসব জায়গায় ছাত্রলীগের কমিটি আরও পরিশীলিত করতে হবে। সেখানে যেন কোনো বিশৃঙ্খলা না হয়, সে বিষয়ে ছাত্রলীগকে সতর্ক থাকতে হবে। সামনে নির্বাচন, তাই ছাত্রলীগের কাজের জন্য দলের যেন কোনো ক্ষতি না হয়।”

ছাত্রলীগের সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, “এ ধরনের আলোচনা সভাগুলো ঘরোয়া সেমিনার ধরনের না হওয়াই ভালো। এমন আলোচনা সভা বটতলায় হওয়া ভালো। কারণ, এমন মিলনায়তনে একটি হল শাখা ছাত্রলীগের কমিটির নেতাকর্মীদের স্থান সংকুলান হয় না। এ ছাড়া যারা প্রতিদিন একই কথা শুনে অভ্যস্থ, তাদের বাদ দিয়ে ছাত্রলীগের প্রতি যেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা আগ্রহী হয়, সে জন্য বটতলায় এসব অনুষ্ঠান হলে ভালো। ছাত্রলীগের গুণগত গভীরতা নিয়ে কিছু কিছু জায়গায় আমার প্রশ্ন আছে।”

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের বিষয়ে সংবাদপত্রগুলোর ভূমিকারও সমালোচনা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, “রংপুর নিয়ে কত রকমের লেখা হচ্ছে। কেউ কেউ আদাজল খেয়ে রাজনৈতিক কারণে নেমে দাঁড়িয়েছে আমাদের বিরুদ্ধে। সেটা আমরা বুঝি। ফার্স্ট পেজ, ব্যাক পেজ সরকারের বিরুদ্ধে যা লেখা যায়।

“রংপুরে আমরা হেরেছি, কিন্তু গতবারের চেয়ে ৩৫ হাজার ভোট বেশি পেয়েছি সেটা তো কেউ লেখেনি। যারা সমালোচনা করেন, তাদের কথা বলছি।”

বিএনপিকে ‘অদ্ভুত’ দল আখ্যায়িত করে কাদের বলেন, “বিএনপি জিতলে বলে নির্বাচন কমিশনের ওপর আস্থা আছে। হেরে গেলে বলে আস্থা নেই। কুমিল্লায় আস্থা ছিল, রংপুরে আস্থা নেই।

“কেমনে আপনাদের টেনে তুলবে? আপনারা সেকেন্ড না তো, আপনারা থার্ড। থার্ডকে টেনে তুলবে কীভাবে? তাহলে কি জাতীয় নির্বাচনে ৩০০ আসন আপনাদের দিতে হবে- আস্থা রাখার জন্য? অদ্ভুত এক দল বিএনপি।”

ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম সভায় বক্তব্য রাখেন।


ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল




সর্বশেষ সংবাদ