বাংলা ফন্ট

জয়পুরহাটে কনকনে শীত

04-01-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 জয়পুরহাটে কনকনে শীত
জয়পুরহাট: জেলায় কনকনে শীতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ। শীত মোকাবেলায় সরকারের ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে ২৪ হাজার কম্বল বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। জেলায় বৃহষ্পতিবার ১০ ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।
জেলায় শীতের তীব্রতায় জবুথবু হয়ে পড়েছে ছিন্নমূল খেটে খাওয়া দরিদ্র মানুষ। জয়পুরহাট গত দু’দিনে ঘন কুয়াশা ও উত্তরের হিমেল হাওয়ায় শীতের তীব্রতা চরমভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে ছিন্নমূল নিন্ম আয়ের খেটে খাওয়া মানুষের ভিড় বেড়েছে কমদামি কাপড়ের রেলওয়ে হকার্স মার্কেটে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র বাসস’কে জানায়, বুধবার জেলায় ১১ ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হলেও তা বৃহষ্পতিবারে নেমে আসে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। রেলওয়ে হকার্স মার্কেট ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি দোকানে উপচে পড়া ভিড়। ২০ টাকা থেকে শুরু করে দুই’শ/ তিন’শ টাকা পর্যন্ত গরম কাপড় বিশেষ করে সুইটার, জ্যাকেট, মাফলার, নাক-কানবন্ধনি কেনা বেচা হচ্ছে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কাপড় বিক্রি হচ্ছে বলে হকার্স মার্কেটের কাপড় বিক্রেতারা জানান। অপরদিকে শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকারের ত্রাণ বিভাগ থেকে ২৪ হাজার শীতবস্ত্র হিসেবে কম্বল বরাদ্দ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ১৮ হাজার কম্বল বিতরণ সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানান জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মুফাক্ষারুল ইসলাম। এ ছাড়াও বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান দরিদ্র ও ছিন্নমূল মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ শুরু করেছে। জেলা সমাজসেবা বিভাগ একশ, প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থা একশ ও পাশে আছি আমরার পক্ষ থেকে শতাধিক কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। জেলায় সূর্যের আলো দেখা গেলেও শীতের তীব্রতায় তা বুঝা যাচ্ছেনা। দুর্ঘটনা এড়াতে যানবাহন চলাচল করছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। সাধারণ মানুষ উত্তর থেকে বয়ে আসা হিমেল হাওয়ায় জবুথবু হয়ে পড়েছে শীতের তীব্রতায়। শীতের তীব্রতায় আলুতে লেটব্রাইট নামক এক প্রকার সত্রাকের আক্রমণ হওয়ার আশংকা বেশি থাকে। এ সত্রাকের আক্রমণ থেকে আলু ক্ষেতকে রক্ষা করার জন্য কৃষি বিভাগ কৃষক পর্যায়ে সতর্কতা মূলক লিফলেট বিতরণ করছে বলে জানান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সেরাজুল ইসলাম।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল



সর্বশেষ সংবাদ