বাংলা ফন্ট

সাংবাদিক মারধরের মামলায় ভূমিমন্ত্রীর ছেলে কারাগারে

13-12-2017
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 সাংবাদিক মারধরের মামলায় ভূমিমন্ত্রীর ছেলে কারাগারে
পাবনা: পাবনায় ঈশ্বরদীতে সাংবাদিককে মারধরের মামলায় ভূমিমন্ত্রীর ছেলে শিরহান শরীফ তমালের জামিন না-মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

বুধবার পাবনা জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত এই নির্দেশ প্রদান করে।

এর আগে পাবনার ঈশ্বরদীতে ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর ছেলে উপজেলা যুবলীগ সভাপতি শিরহান শরীফ তমালের নেতৃত্বে সন্ত্রসী হামলায় চার সাংবাদিক আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার বিকেল ৩টার দিকে পাবনার ঈশ্বরদীতে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের সাইট অফিসের সামনে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

এমনকি আহত সাংবাদিকরা ঈশ্বরদী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে গেলে সেখানেও তাদের বাধা দেয়া হয়। পরে তারা পাবনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নেন।

আহত সাংবাদিকরা জানান, বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী রূপপুর প্রকল্পে যাবেন, তার একদিন আগে ভূমিমন্ত্রী ডিলুর আসনে (পাবনা-৪) আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রবিউল আলম বুদু সেখানে গেলে তার গাড়িবহর আক্রান্ত হয়, এসময় গাড়ি ভাঙচুর করছিলেন ভূমিমন্ত্রীর ছেলে শিরহান শরীফের নেতৃত্বে ৪০/৫০ জন নেতাকর্মী, এই সংবাদ সংগ্রহে গেলে হামলার মুখে পড়েন সাংবাদিকরা।

তাদের হামলায় আহতদের মধ্যে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের পাবনা প্রতিনিধি সৈকত আফরোজ আসাদ, ডিবিসির জেলা প্রতিনিধি পার্থ হাসানসহ এটিএন নিউজের জেলা প্রতিনিধি রিজভী, সময় টিভির ক্যামেরাপারসন মিলন রয়েছেন।

আহত সাংবাদিক ও বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের পাবনা প্রতিনিধি সৈকত আফরোজ বলেন, ‘ভূমিমন্ত্রীর ছেলে তমালের নেতৃত্বে ৩০-৪০ জন রবিউল আলম বুদুর গাড়ি ভাংচুর করছিল। তা দেখে আমরা ছবি তুলতে গেলে হামলাকারীরা আমাদের মারধর শুরু করে। কারও মোবাইল ফোন, কারও ল্যাপটপ ছিনিয়ে নিয়ে তা ভেঙে ফেলে তারা।’

আওয়ামী লীগ সমর্থক আইনজীবীদের নেতা ও দলের পাবনা জেলা কমিটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য বুদু বলেন, আমার গাড়িবহর ও সাংবাদিকদের উপর হামলার জন্য মন্ত্রীপুত্র তমালকে দায়ী, এই ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে বলেও জানান তিনি।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে তিনি বুদু বলেন, ‘একটি প্রকল্প উদ্বোধনের প্রধানমন্ত্রীর বৃহস্পতিবার রূপপুরে আসার কথা রয়েছে। এ উপলক্ষে বুধবার দুপুরের দিকে আমার নেতা-কর্মীরা এলাকায় পোস্টার লাগাচ্ছিল। এ সময় ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর ছেলে শিরহান শরীফ তমাল, রূপপুর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজিব সরকার, ও স্থানীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রনির নেতৃত্বে ৩৫ থেকে ৪০ জন আমার নেতা-কর্মীদের উপর হামলা ও আমার গাড়ি ভাংচুর করে।’

তিনি আরো বলেন, ‘প্রথমে তারা গুলি চালিয়ে এলাকায় আতঙ্ক তৈরি করে। পরে তাদের হাতে থাকা পিস্তলের বাট দিয়ে আমার নেতা-কর্মীদের মারধর করে ও পোস্টার ছিঁড়ে ফেলে। সাংবাদিকরা ছবি তুলতে গেলে হামলাকারীরা তাদের উপরও হামলা চালায়।’

হামলায় নিজের সমর্থক প্রকৌশলী সৈকত আরেফিন চোখে গুরুতর আঘাত পেয়েছেন বলে বুদু জানান। আরেফিনকে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পাবনার পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির বলেন, ‘স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময় ছবি তুলতে গেলে সাংবাদিকদের উপর হামলা হয়েছে বলে শুনেছি। তদন্ত করে ঘটনার বিস্তারিত শুনে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে।’

এর আগেও সন্ত্রাসী হামলা ও ভাঙচুর মামলায় ভূমিমন্ত্রীর ছেলে তমালকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঈশ্বরদী উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জুবায়ের বিশ্বাসের বাড়িতে হামলার পর তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা আতিয়ার বিশ্বাসের করা মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছিলেন তমাল, তার বিরুদ্ধে হামলা-হুমকির আরও অভিযোগ রয়েছে, এছাড়া ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাঙচুর মামলায় ১৯ মে এই মন্ত্রীপুত্রকে আটক করে যৌথবাহিনী।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল


সর্বশেষ সংবাদ