বাংলা ফন্ট

নকল মূর্তিসহ দুই 'জিনের বাদশাহ' আটক

01-11-2017
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

নকল মূর্তিসহ দুই 'জিনের বাদশাহ' আটক

বগুড়া: বগুড়ার ধুনট উপজেলায় পিতলের তৈরি একটি নকল মূর্তিসহ জিনের বাদশাহ পরিচয়দানকারী প্রতারক চক্রের দুই সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে তাদেরকে আটক করা হয়।
 
আটককৃতরা হলেন, নেত্রকোনার আটপাড়া উপজেলার বানিয়াজান গ্রামের আব্দুল আওয়াল খানের ছেলে রফিকুল ইসলাম রিপন (৩৫) এবং চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার খাকরিয়া গ্রামের আব্দুল হাকিমের ছেলে শামছুল ইসলাম (৪৫)। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে ধুনট থানা থেকে আদালতের মাধ্যমে তাদের বগুড়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
 
থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ধুনট উপজেলার সোনাহাটা বাজার এলাকার চাঁন মিয়ার ছেলে শাহাদত হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয় রফিকুল ইসলাম রিপনের। প্রায় এক সপ্তাহ ধরে মোবাইল ফোনের আলাপচারিতায় রফিকুল নিজেকে জিনের বাদশাহ পরিচয় দেন। শাহাদতের উপর জিনের বাদশার সুদৃষ্টি পড়েছে বলে জানায় রফিকুল।
 
এ অবস্থায় কথিত জিনের বাদশাহ রফিকুল নিজে থেকে শাহাদতের সাথে দেখা করতে চায়। এক পর্যায়ে রফিকুল ও তার সহযোগী শামছুল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে শাহাদতের বাড়িতে আসেন। তারা পিতলের তৈরি একটি নকল মূর্তিকে সোনার মূর্তি বলে শাহাদতের নিকট দুই লাখ টাকা দাবী করে। 'এই মূর্তির ভেতর জিনের বাদশাহর আত্মা রয়েছে। তাই এই মূর্তি বাড়িতে থাকলে অনেক অর্থ সম্পদের মালিক হওয়া সম্ভব।' এমন সব প্রলোভন দেখিয়ে দুই লাখ টাকা আদায়ের চেষ্টাকালে শাহাদতের সন্দেহ হয়।
 
এসময় রফিকুল ও শামছুলকে আটক করে থানায় সংবাদ দেন শাহাদত। সংবাদ পেয়ে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে রফিকুল ও শামছুলকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় শাহাদত হোসেন বাদী হয়ে প্রতারক রফিকুল ও শামছুলের বিরুদ্ধে ধুনট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
 
ধুনট থানার উপ-পরিদর্শক খোকন কুমার কুণ্ডু বলেন, 'রফিকুল ও শামছুল প্রতারক চক্রের দুই সদস্য। তারা নিজেদের জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে সহজ-সরল মানুষের ক্ষতি করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।'

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল




সর্বশেষ সংবাদ