বাংলা ফন্ট

মহাজন আতংকে হাওরাঞ্চলের কৃষক

17-04-2017
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

মহাজন আতংকে হাওরাঞ্চলের কৃষক


কিশোরগঞ্জ: আগাম পাহাড়ি ঢল ও অতিবৃষ্টিতে কিশোরগঞ্জের হাওর ও নিম্নাঞ্চলের অর্ধলক্ষাধিক হেক্টর জমির বোরো ফসল নষ্ট হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, হাওরাঞ্চলের সারা বছরের একমাত্র ফসল বোরো ধান নষ্ট হওয়ায় সামনের দিনগুলো কীভাবে কাটবে এ চিন্তায় দিন কাটছে কৃষকের।

কারণ এ ফসলকে ঘিরেই সারা বছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব এবং পরিকল্পনা গ্রহণ করে তারা। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে ব্যাংক ঋণ ও মহাজনের কাছ থেকে থেকে নেওয়া অর্থ পরিশোধের দুশ্চিন্তা। বেশির ভাগ কৃষকই এক ছটাক ধানও ঘরে তুলতে পারেনি। মামলা এবং মহাজনের তাগাদার আতঙ্কে দিশেহারা হয়ে পড়েছে এ অঞ্চলের কৃষক।

নিঃস্ব হয়ে পড়েছে হাওরে আগত ‘জিরাতিরা’ও। জিরাতিরা সবাই হাওরাঞ্চলের বাইরের লোক। বিভিন্ন এলাকা থেকে তারা দলে দলে হাওরে এসে এক মৌসুমের জন্য জমি ‘পত্তন’ নিয়ে ও ঘরবাড়ি বেঁধে পরিবার-পরিজন নিয়ে সেখানে থাকে। চাষাবাদ থেকে ফসল কাটা পর্যন্ত কয়েক মাস তারা হাওরেই অবস্থান করে। ফসল কাটার পর  উত্তোলিত ফসল নিয়ে কিংবা ফসল বিক্রি করে তারা আবার নিজ নিজ এলাকায় ফিরে যায়।

সঞ্চিত অর্থ নিয়ে, ধার-দেনা করে এবং সোনা-দানা গচ্ছিত রেখে তারা এ বছরও হাওরে এসেছিল, কিন্তু ফিরে যাচ্ছে একেবারে খালি হাতে। ধান কাটার মৌসুমে প্রতিবছর দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে হাজার হাজার শ্রমিক ধান কাটার জন্য হাওর এলাকায় আগমন করে। কিন্তু ফসল বিপর্যয়ের জন্য এ বছর তারাও কর্মহীন থাকবে।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইচএমএল

সর্বশেষ সংবাদ