বাংলা ফন্ট

শীর্ষ সন্ত্রাসী জোসেফকে বিদেশ যাওয়ার অনুমতি

30-05-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 শীর্ষ সন্ত্রাসী জোসেফকে বিদেশ যাওয়ার অনুমতি


ঢাকা: রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনার পরিপ্রেক্ষিতে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড নিয়ে কারাবন্দি শীর্ষ সন্ত্রাসী তোফায়েল আহমেদ জোসেফকে শারীরিক অসুস্থতার জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

বুধবার সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মন্ত্রী এ কথা জানান। এর আগে তিনি বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শিয়া বার্নিকাটের সঙ্গে বৈঠক করেন।

জোসেফ এখন কোথায়- ‘জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জোসেফের যে প্রসঙ্গটা, তার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছিল। তিনি অলরেডি ২০ বছর কারাভোগ করেছেন। ২০ বছর কারাভোগের পরই তিনি ডিউ প্রসেসে, যেভাবে প্রসেস হয় সেভাবে আবেদন করেছেন। সেই আবেদনটি মাহামান্য (রাষ্ট্রপতি) পর্যন্ত যাচ্ছে।’

জোসেফ ভারতে চলে গেছে- একজন সাংবাদিক জানাতেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘ইন্ডিয়াতে চলে গেছে আপনি দেখেছেন নাকি।’ ওই সাংবাদিক তখন বলেন- ‘আমি দেখিনি। পত্রিকায় খবর এসেছে।’

জোসেফ জেলে আছে নাকি বেরিয়ে গেছে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তিনি (জোসেফ) আবেদন করেছিলেন ভয়ানক অসুস্থ, এক বছর না দেড় বছর বাকি ছিল (সাজা), এক বছর কয়েক মাস। সেটার জন্য তিনি মার্সি পিটিশন (ক্ষমা প্রার্থনা) করেছিলেন, সেটি খুব সম্ভব রাষ্ট্রপতি অনুমোদন করেছেন...এক বছর কয়েক দিন, তার কিছু অর্থদণ্ডও ছিল। সেগুলো আদায় সাপেক্ষে তাকে বিদেশে চিকিৎসার পারমিশন (অনুমতি) দিয়েছিলেন রাষ্ট্রপতি। এটুকু আমি জানি, এর চেয়ে বেশি কিছু জানি না।’

বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন জোসেফ। সেখান থেকেই মুক্তি পান ঢাকার আন্ডারওয়ার্ল্ডের এ অন্যতম নিয়ন্ত্রক।

১৯৯৯ সালের একটি হত্যাকাণ্ডে জোসেফের মৃত্যুদণ্ড হয়। হাইকোর্টও এ রায় বহাল রাখেন। পরবর্তী সময়ে আপিল বিভাগ সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। এখনও সেই সাজা ভোগ করা বাকি আছে প্রায় ২০ বছর। তার সম্ভব্য মুক্তির তারিখ ছিল ২০৩৯ সালের ২৪ জানুয়ারি। ২০ বছর আগে জোসেফকে যখন গ্রেফতার করা হয়, তখন তার নামে ঢাকার বিভিন্ন থানায় সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, খুন, অবৈধ অস্ত্র বহনসহ বিভিন্ন অভিযোগে অন্তত ১১টি মামলা হয়।

রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী জোসেফকে ১৯৯৯ সালের একটি হত্যাকাণ্ডের দায়ে মৃত্যুদণ্ড দেন বিচারিক আদালত।

এ রায়ের বিরুদ্ধে জোসেফ আপিল করলেও মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন হাইকোর্ট। পরে আপিল বিভাগ এ সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।

কারাগারে বন্দি জোসেফ চিকিৎসার জন্য ২০ মাস ধরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের (বিএসএমএমইউ) কারাকক্ষে ছিলেন।

জোসেফ অসুস্থ না হয়েও দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসার নামে আরাম-আয়েশ করছেন বলে সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হলে গত ৭ মে তাকে কারাগারে ফিরিয়ে নেয় কারাকর্তৃপক্ষ।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল

সর্বশেষ সংবাদ