বাংলা ফন্ট

সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের সম্মেলনে বাংলাদেশ

27-11-2017
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের সম্মেলনে বাংলাদেশ
ঢাকা: সৌদি নেতৃত্বাধীন ইসলামিক সামরিক সন্ত্রাসবিরোধী জোটের (আইএমসিটিসি) সম্মেলনে যোগ দিয়েছে বাংলাদেশ। রিয়াদে ৪১টি মুসলিম দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের নিয়ে শুরু হয়েছে এ আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবিরোধী সম্মেলন।

রবিবার রিয়াদের একটি হোটেলে সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স ও প্রতিরামন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমান সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। এবারের সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘সন্ত্রাসবিরোধী সহযোগিতা’।

মূলত মতাদর্শ, যোগাযোগ, জঙ্গি-সন্ত্রাসী অর্থায়ন এবং সামরিক এই চারটি বিষয়ে জোটের সদস্য দেশগুলো সন্ত্রাসবিরোধী প্রচেষ্টাকে একত্র ও সমন্বয় করার জন্য কাজ করবে। সন্ত্রাসবাদের হুমকি, যা মুসলিম ও অমুসলিম দেশগুলোকে তিগ্রস্ত করছে এবং ইসলামের ভাবমর্যাদাকে বিকৃত করছে, তা নিয়ে কাজ করবে আইএমসিটিসি।

রিয়াদে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, সম্মেলনে পাঁচ সদস্যের বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রীর প্রতিরক্ষা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব:) তারিক আহম্মেদ সিদ্দিক।

তিনি বলেন, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ জিরো টলারেন্সনীতি অনুসরণ করে। বাংলাদেশ তার ভূখণ্ড সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করার অনুমতি দেয় না। তারিক আহম্মেদ সিদ্দিক সম্প্রতি বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অনুপ্রবেশের ইস্যুটি সম্মেলনে উত্থাপন করেন।

রোহিঙ্গাদের তাদের ভূমি থেকে উচ্ছেদের মূল কারণের বিষয়ে তিনি আলোকপাত করেন।প্রতিরা উপদেষ্টা সৌদি আরবকে জোট গঠনের জন্য ধন্যবাদ জানান এবং বাংলাদেশের নীতি ও সামর্থ্য অনুযায়ী অসামরিক খাতে তথ্য ও অভিজ্ঞতা বিনিময়, গবেষণা ও সহযোগিতার মাধ্যমে জোটে অবদান রাখার প্রতিশ্রুতি দেন।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান বিভিন্ন দেশ থেকে সন্ত্রাসবিরোধী সম্মেলনে যোগ দিতে আসা প্রতিরামন্ত্রীদের স্বাগত জানান। তিনি সম্প্রতি মিসরে মসজিদে বোমা হামলায় প্রায় ৩০০ মুসলিম নিহতের ঘটনায় গভীর দুঃখ ও শোক প্রকাশ করেন। এ ঘটনায় যুবরাজ বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার সময় এসেছে বলে জানান।

ক্রাউন প্রিন্স বলেন, ইসলাম ধর্মের বিরুদ্ধে বিদ্বেষপূর্ণ অপপ্রচার ছড়ানো সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থার সবচেয়ে বড় বিপদ। আমরা এটা ঘটতে দেবো না। বিগত বছরগুলোতে সন্ত্রাসবাদ প্রায় প্রতিটি দেশে বিস্তার লাভ করেছে।

এখন থেকে এই জোটের সদস্য দেশগুলো সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে একত্রে কাজ করবে। সামরিক, আর্থিক, গোয়েন্দা এবং প্রতিটি সদস্য রাষ্ট্রের রাজনৈতিক প্রচেষ্টাকে সমর্থন দেয়ার জন্য জোট একসাথে কাজ করবে।

বৈঠকে আইএমসিটিসির ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল লেফটেন্যান্ট জেনারেল আবদুল্লাহ আল-সালেহ জোটের কৌশল, কার্যক্রম এবং ভবিষ্যতের পরিকল্পনাগুলো তুলে ধরেন।বাংলাদেশ দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স ড: নজরুল ইসলাম ও ডিফেন্স অ্যাটাশে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহআলম চৌধুরী সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল



সর্বশেষ সংবাদ