বাংলা ফন্ট

'ফরহাদ মজহার এমন কেউ নন তাঁকে সরকার ভয় পাবে'

06-07-2017
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

'ফরহাদ মজহার এমন কেউ নন তাঁকে সরকার ভয় পাবে'

ঢাকা: খ্যাতিমান লেখক ও কলামিস্ট ফরহাদ মজহারকে পুলিশ উদ্ধার করলেও কারা তাকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল, সেই রহস্য এখনো উদঘাটন করা যায়নি।

এই ঘটনার তদন্তের ভার দেয়া হয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখাকে। এদিকে উদ্ধার পাওয়ার পর ফরহাদ মজহার আদালতে একটি জবানবন্দী দিলেও এখনো এ ঘটনা নিয়ে মুখ খোলেননি, তার পরিবারের তরফ থেকেও নতুন কিছুই বলা হচ্ছে না।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একজন উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম ফরহাদ মজহারের এই কথিত 'অপহরণের' ঘটনার সঙ্গে সরকারের কোনো সম্পর্কের কথা জোর গলায় অস্বীকার করেছেন।

ফরহাদ মজহার এবং এর আগে বিগত কয়েক বছরে একইভাবে আরও কয়েকজনের রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হওয়া এবং তারপর তাদের খুঁজে পাওয়ার ঘটনা নিয়ে এইচ টি ইমামের সাথে কথা বলেছিলেন বিবিসি বাংলার মোয়াজ্জেম হোসেন।

সাক্ষাৎকারটির পূর্ণ বিবরণ:

প্রশ্ন: একের পর এক এরকম অপহরণের ঘটনা ঘটছে, এতে সরকার কতটা উদ্বিগ্ন?

উনি নিজে আদালতে গিয়ে ১৬৪ -এ স্টেটমেন্ট দিয়েছেন। এই ব্যাপারে তাকে উদ্ধারের বিষয়ে পুলিশের ভূমিকা প্রশংসনীয়। কাজেই তাকে কোনো আইনশৃঙ্খলা বাহিনী উঠিয়ে নিয়ে গেছে বা সরকারের কিছু করার ছিল-প্রশ্নই উঠে না। ফরহাদ মজহার সাহেব এমন কোনো ব্যক্তি নন যে তাকে সরকার ভয় করবে বা তিনি একজন সরকারের প্রতি থ্রেট বা তার পিছনে কোনো দল কিছুই না। সরকারের বিরুদ্ধে কত লোকইতো দেখছেন, তাদের পেছনে কি সরকার ঘুরে বেড়াচ্ছে?

প্রশ্ন: কিন্তু এই যে সাধারণ মানুষের অনেকে প্রশ্ন তুলছেন এই ঘটনার পেছনে সরকার থাকতে পারে এরকম একটা সন্দেহ, আপনি বলছেন এর পেছনে সরকার নেই?

আমি বলবো একেবার প্রশ্নই উঠে না। সরকারের কাছে তিনি এমন কোনো গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি নন যে তাকে নিয়ে ..

প্রশ্ন: কিন্তু তিনিতো সরকারের একজন কঠোর সমালোচক , সেকারণে এমন সন্দেহ উঠছে-

না তেমন নয়। তার মতো সমালোচক অনেকে রয়েছেন। বদরুদ্দিন ওমর কি কম লেখেন নাকি? আমার মনে হয় ফরহাদ মজহারের তুলনায় অনেক উঁচু দরের লেখক।

প্রশ্ন: কিন্তু বাংলাদেশে যারা সরকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার, বা সরকারের সমালোচক এর আগে নিখোঁজ হয়েছেন-যেমন বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির যিনি প্রধান সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান তাঁর স্বামী নিখোঁজ ছিলেন তাকে আবার খুঁজে পাওয়া গেছেন, নাগরিক ঐক্য সমিতির প্রধান মাহমুদুর রহমান নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন পরে জানা গেল সরকার তাকে গ্রেফতার করেছে-

না দেখুন রিজওয়ানার স্বামীর ঘটনাটাতো পরে আমরা জেনেছি ওটা পারিবারিক ঘটনা ছিল। এটার সঙ্গে সরকারের কোনো সম্পর্ক নেই এবং ওর সঙ্গেতো আমাদের সকলের ভালো সম্পর্ক। আর মাহমুদুর রহমানকেতো সরকার গ্রেফতার করেছিল।

প্রশ্ন: যেমন এর আগে বিএনপির একজন সালাউদ্দিন আহমেদ, তিনি হঠাৎ করে নিখোঁজ হয়ে গেলেন তারপরে ভারতে তাঁকে পাওয়া গেল-এ নিয়ে আপনি কী বলবেন?

তিনিতো নিজে গেছেন। নিজে গেছেন বলেইতো তিনি ওখানে আছেন। তাঁর ওখানে আত্মীয়স্বজন আছেন।

প্রশ্ন:অর্থাৎ আপনি বলছেন সাধারণ আইনশৃঙ্খলাজনিত সমস্যা। সরকারের সমালোচনা করছেন বলে তাদের টার্গেট করে করা হচ্ছে বলে এমনটা হচ্ছে তা মনে করছেন না?

না, একদম না।

প্রশ্ন: কেবলমাত্র সরকারের যারা কঠোর সমালোচক তাদের ক্ষেত্রেই কেমন এমনটা ঘটছে? অন্যদের ক্ষেত্রে কেন ঘটছে না?

অনেকে এমন আছেন তো যারা বাড়ি থেকে চলে যান। আপনি সাধারণ লোকের খোঁজখবর রাখেন না? বহু বাড়ি থেকে অনেকেই চলে যান। সরকারের দায়িত্ব হলো সাধারণভাবে মানুষ যেন শান্তিতে থাকতে পারেন সেই নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। এখন ১৬/১৭ কোটি লোকের মধ্যে দুই-একজন যদি এদিক-ওদিক চলে যান তার জন্য সরকার দায়ী হবে?

প্রশ্ন: ইমাম আপনার কি মনে হয় আপনারা এ ঘটনাগুলোর যে ব্যাখ্যা দিচ্ছেন সেগুলো আসলে সাধারণ মানুষ বিশ্বাস করছে?

করছে। আপনারা না করলেও সাধারণ মানুষ এটা নিয়ে মাথাই ঘামায় না। 'ফরহাদ মজহার কে' এটা জিজ্ঞেস করে দেখেনতো, আপনি সার্ভে করে দেখেন কয়জন মানুষ তাকে চেনেন? সাধারণ মানুষ না বরং কতিপয় মানুষ বিশ্বাস করছে না, যাদের নিজেদের স্বার্থ আছে

প্রশ্ন: কিন্তু এটাতো সত্য আপনারা সরকারের থেকে যে বক্তব্যই দেন না কেন এ ঘটনাগুলোকে অনেকেই বাংলাদেশে বিরোধীদের ওপর সরকারের দমন-নিপীড়ন হিসেবে দেখবে?

না, বিরোধী দলের ওপর বাংলাদেশে কোনো দমন-নিপীড়ন হচ্ছে না, এটা আমি দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলতে পারি। যদি সেটা হতো তাহলে তার পরিচয় অন্যরকমভাবে পেতেন।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইচএমএল


সর্বশেষ সংবাদ