বাংলা ফন্ট

বর্জ্য পলিথিন দিয়ে তৈরি হচ্ছে পেট্রোল ডিজেল

23-06-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 বর্জ্য পলিথিন দিয়ে তৈরি হচ্ছে পেট্রোল ডিজেল

জামালপুর: জামালপুরের তৌহিদুল ইসলাম তাপস বর্জ্য পলিথিন থেকে পেট্রোল, ডিজেল, এলপি গ্যাস ছাড়াও কালি উত্পাদন করে সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। এই তরুণের বাড়ি জামালপুর সদর উপজেলার কেন্দুয়া ইউনিয়নের মঙ্গলপুর গ্রামে। তার বাবার নাম আবদুল মান্নান ও মা হালিমা খাতুন। ছোটবেলা থেকেই তৌহিদুল তার বাবা মায়ের উত্সাহে উদ্ভাবনী কাজে উদ্বুদ্ধ হয়েছিলেন।

তৌহিদুল বলেন, তিনি ২০০৯ সালে জামালপুর সদর উপজেলার নারিকেলি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করার পর শহরের জিয়াউর রহমান ডিগ্রি কলেজ ভর্তি হন। ২০১১ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে পরের বছর পলিটেকনিকে ভর্তি হন। তিনি ডিপ্লোমা ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন।

২৫ বছর বয়সী এই তরুণ ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামে অংশ নিয়ে দেশের সেরা উদ্ভাবক হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। তার উদ্ভাবিত পরীক্ষামূলক প্লান্ট স্থাপনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে এটুআই প্রকল্পের ফান্ড থেকে সাড়ে ৬ লাখ টাকা আর্থিক অনুদান দিয়ে উত্সাহিত করেছেন। পাশাপাশি জামালপুর পৌর মেয়র মীর্জা সাখাওয়াতুল আলম বর্জ্য শোধানাগার কেন্দ্রের পাশে তাকে জমি বরাদ্দ দিয়ে বর্জ্য পলিথিন থেকে পেট্রোল, ডিজেল, এলপি গ্যাস ও কার্বন কালি উত্পাদন করার সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন।

কোচগড় এলাকায় তৌহিদুল প্রধানমন্ত্রীর তহবিল থেকে পাওয়া অর্থে স্বল্প পরিসরে যন্ত্রপাতি বসিয়ে বর্জ্য পলিথিন থেকে পেট্রোল, ডিজেল, এলপি গ্যাস ইত্যাদি উত্পাদন করে তা বাজারজাত করছেন। অতিসমপ্রতি মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল ইনভেনশন, ইনোভেশন অ্যান্ড টেকনোলজি এক্সিবিশন (আইটেক্স)-২০১৮ এ অংশ নিয়ে সেরা উদ্ভাবকের স্বর্ণ পদক লাভ করেন।

তরুণ বিজ্ঞানী তৌহিদুল বলেন, পরিত্যক্ত পলিথিন পরিবেশ দূষণ ছাড়াও নানা সমস্যা সৃষ্টি করে। তাই তিনি সিদ্ধান্ত নেন পলিথিন মুক্ত পরিবেশ গড়তে হবে। তাই তিনি ছড়ানো-ছিটানো পলিথিন যেখানে পেয়েছেন সেখানেই পুড়িয়েছেন। কিন্তু বিজ্ঞান বইতে তিনি পড়েছেন, ‘কালো ধোঁয়ায় পরিবেশ দূষণ হয়’। এ কারণে উন্মুক্ত পরিবেশে পলিথিন পোড়ালেও তা ক্ষতিকর। তাই চিন্তা করতে থাকেন না পুড়িয়ে কিভাবে এই জঞ্জাল থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। কলেজে ভর্তি হবার পর রসায়ন বিভাগের প্রভাষক ইকরামুজ্জামান স্যারের সঙ্গে এ বিষয়টি নিয়ে তিনি আলোচনা করেন। স্যারের পরামর্শে কলেজের গবেষণাগারে গবেষণা শুরু করেন তৌহিদুল। ছাত্রের আগ্রহ দেখে স্যার একপর্যায়ে  বিজ্ঞানাগার থেকে এসিড, টেস্টটিউব ছাড়াও সবশেষে বিজ্ঞানাগারের চাবি তার হাতে তুলে দেন। দিন-রাত গবেষণায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করার পর অবশেষে সফলতা আসে। পরিত্যক্ত পলিথিন থেকে এই মূল্যবান পণ্যগুলো তিনি উত্পাদন করতে সক্ষম হন।

তৌহিদুল বলেন, জ্বালানি চেম্বারে নিয়ে উচ্চ তাপমাত্রায় (৭০০ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে) উত্তপ্ত করার সময় পলিথিন যখন তরল হয়, তখন স্ববিভাজন বিক্রিয়া ঘটে। এসময় জ্বালানি তেলের বাষ্প সৃষ্টি হয় এবং সেখানে প্রচণ্ড চাপ সৃষ্টি হয়। ফলে জ্বালানি তেল বাষ্পাকারে খুব দ্রুত অন্য একটি শীতল চেম্বারে চলে আসে। পরে তা ঠান্ডা করে মিথেন বা এলপি গ্যাস ও জ্বালানি তেল পৃথক ভাবে নিজ নিজ চেম্বারে নেয়া হয়। তরল জ্বালানি ও এলপি গ্যাস বের হওয়ার পর সেখানে মুক্ত কার্বন তৈরি হয়, যা পরে ছাপার কাজে কালি হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকায় তৌহিদুল পরীক্ষামূলকভাবে ১৫০ কেজি সাপোর্টের একটি প্ল্যান্ট বসিয়েছেন। এর সাহায্যে পলিথিন থেকে ১০৫ লিটার পেট্রোল, ডিজেল ও এলপি গ্যাস উত্পাদন করা যায়। দিনে উত্পাদন ক্ষমতা ৩১৫ লিটার। তিনি বলেন, বড় মাপে সরকারি সহযোগিতা পেলে প্রতিদিন ৫ হাজার সাপোর্টের একটি প্ল্যান্ট স্থাপন করে জ্বালানি তেলের যোগান দেয়া যেমন সম্ভব তেমনি পরিবেশকে বর্জ্য পলিথিনের অভিশাপ মুক্ত করাও সম্ভব। তিনি আরো বলেন, কেবল অর্থ উপার্জন নয়; পলিথিন ধ্বংস করে পরিবেশ রক্ষা করাই তার মূল উদ্দেশ্য।

এ বিষয়ে জিয়াউর রহমান ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক মো. ইকরামুজ্জামান বলেন, তাপসের ইচ্ছা, একাগ্রতা, উদ্ভাবনী প্রতিভা দেখে নানাভাবে সহযোগিতা করার চেষ্টা করেছি। পরিত্যক্ত পলিথিন থেকে তেল, গ্যাস ও কার্বন কালি তৈরির প্রকল্পের পাশে সরকারসহ বেসরকারি উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

অপরদিকে জামালপুর পরিবেশ রক্ষা আন্দোলনের সভাপতি জাহাঙ্গীর সেলিম বলেন, পরিবেশ রক্ষায় আমরা অনেক পদক্ষেপ গ্রহণ করেও সেভাবে সফলতা পাইনি। পরিবেশ দূষণের অন্যতম কারণ এই পলিথিন। তৌহিদুলের এ আবিষ্কারের ফলে পলিথিন সমস্যার সমাধান হতে পারে। তার উদ্ভাবনের ব্যাপক বাণিজ্যিক প্রয়োগ হলে পরিত্যক্ত পলিথিন কুড়িয়ে বিক্রি করার কাজে যুক্ত হবে অনেকে। ফলে অর্থনীতির গতি আরো সচল হবে।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল


সর্বশেষ সংবাদ