বাংলা ফন্ট

বিশ্বব্যাপী অ্যাজমার প্রধান কারণ বায়ু দূষণ

31-10-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 বিশ্বব্যাপী অ্যাজমার প্রধান কারণ বায়ু দূষণ
ঢাকা: বায়ু দূষণে সারা বিশ্বে অ্যাজমায় আক্রান্ত হয়ে প্রতিবছর হাসপাতালে যাচ্ছে ৩৩ মিলিয়ন মানুষ। এর অর্ধেকই ঘটছে ভারত ও চীনসহ দক্ষিণ ও পূর্ব এশিয়ার দেশগুলিতে। এক গবেষণায় এ তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী শ্বাসযন্ত্রের রোগ অ্যাজমা বা হাঁপানি। বর্তমানে প্রায় ৩৫৮ মিলিয়ন মানুষ এতে আক্রান্ত। যুক্তরাজ্যের ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির গবেষকরা তাঁদের গবেষণায় এ দাবি করেছেন। তাঁরা বলেন, ভারত ও চীনের মতো দেশগুলোতে মানুষ বেশি হাঁপানিতে (অ্যাজমা) আক্রান্ত। কারণ এসব দেশে প্রচুর জনসংখ্যা। সেখানে কারখানাগুলোতে উদগীরিত অনিয়ন্ত্রিত ধোঁয়া এবং দূষণের অনেক ক্ষেত্র রয়েছে।

'এনভায়রেনমেন্টাল হেলথ পারস্পেকটিভ' নামের জার্নালে প্রকাশিত গবেষণাকর্মে বলা হয়েছে, যানবাহন থেকে নির্গমন হওয়া ধোঁয়া এবং নানা রকমের দূষণই এসব দেশে অ্যাজমার গুরুত্বপূর্ণ উৎস।

ইয়র্কে অবস্থিত 'স্টকহোম এনভায়রনমেন্ট ইনস্টিটিউট (এসইআই)-এর পরিসি ডিরেক্টর জোহান কুইলেনস্টিয়েরনা বলেন, 'এটি হলো গুরুতর অ্যাজমা আক্রান্ত হওয়ার ক্ষেত্রে বায়ু দূষণের সম্ভাব্য প্রভাব নিয়ে পরিচালিত বিশ্বব্যাপী প্রথম গবেষণা।'

বিশ্বব্যাপী দূষণের মাত্রা নির্ধারণ করতে গবেষকরা অ্যাটমোসফেয়ারিক মডেল, গ্রাউন্ড মডেল এবং রিমোট সেন্সিং ডিভাসসহ স্যাটেলাইট উপকরণ ব্যবহার করেছেন। গবেষকরা বলেন, শ্বাসযন্ত্রের রোগ প্রতিরোধে এখন একটিই উপায়, তা হলো বিশ্বব্যাপী দূষণ উপকরণগুলো হ্রাস করা। এ জন্য কাজ করতে হবে বিশেষ করে বড় বড় শহরগুলোতে যানবাহন থেকে যে ধোঁয়া নির্গত হয় তা নিয়ে।

এতে যে কেবল হাঁপানি ও অন্যান্য শ্বাসযন্ত্রের রোগীদের সহায়তা করা হবে তা নয়, এটি প্রত্যেককে সহায়তা করবে একটু স্বাচ্ছন্দ্যে শ্বাস নিতে।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল



সর্বশেষ সংবাদ