বাংলা ফন্ট

সেবক বিশ্বাস-এর ‍একগুচ্ছ কবিতা

16-04-2017

সেবক বিশ্বাস-এর ‍একগুচ্ছ কবিতা
(কবি সেবক বিশ্বাস, খুলনাতে থাকেন। কবিতা অন্তপ্রাণ মানুষ।পেশা শিক্ষকতা। মূলত কবিতা লেখেন। এবার বইমেলাতে বের হয়েছে ‘ভাঙা বেহুলার অন্ধকার’। ‍এর ‍আগের বছর বইমেলোতে বেরিয়েছিল ‘পেনসিলে ‍আাঁকা জীবন’ কাব্যগ্রন্থটি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিশেষত ফেসবুকের কল্যানে ‍অনেকেই তার কবিতা নিয়মিত পড়ার সুযোগ পান। ‍এবার ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম-তার কয়েকটি কবিতা প্রকাশ করলো। ‍আশা করছি পাঠকের ভাল লাগবে।)


ঝুলে আছে অন্ধকার

ঝুলে আছে অন্ধকার!
রাতের একক রক্ত
লেগে আছে প্রাচীরের গায়!
বর্তুল পৃথিবীতে মরে গেছে
পাখিদের গান!
ন্যুব্জ বৃক্ষ গান্ধার-ঠোঁটে দাঁড়িয়ে
আছে
মাটির ডায়াসে;
হাড়সর্বস্ব সময় কেবল নিঃশ্বাস
ফেলে
নিগূঢ় নিষুপ্তির!
তবু
পুরানো পিয়ানোয় হাত রাখে
নিসর্গ-পথিক;
কস্তুরীগন্ধে নেমে আসে সুরের মৃগ!
আলো জাগে আস্তাবলে-
নিশ্চুপতায়,
বেঁকে যাওয়া বুকের বর্গক্ষেত্রে!

সবুজের হৃৎপিণ্ড

ওই যে প্রগল্ভ পাথর-
রক্ত ভেঙে দাঁড়িয়ে আছে নির্জীব
পথে,
বুকের অশ্রুপাত তার পায়ে এঁকে দেয়
পরাজিত বাষ্পদাগ;
মৃত্যুতে মোছে না জীবন!
বিষণ্ণ অন্ধতা ভেঙে
পাতা জাগে ভোরের মতো।
সময়ের শিরে তবু ফুটে যায় এক অসহ্য
আলপিন!
ধূসর পোকারা খুঁচে খুঁচে খেয়ে ফেলে
সবুজের হৃৎপিণ্ড!
শুয়ে থাকা স্রোতের শয্যায় উড়ে আসে
মরুভূমির মৃত্যুতা,
মগ্ন শস্যরা চলে যায় নতুন অন্তরীপে,
সমাধীর সুরে শুকিয়ে যায়
দ্রাক্ষাকুঞ্জ,
মরা স্বপ্ন দোল খায় আমার ভাঙা
ডালে!

পথ

একটি পথ!
আলোর নিঃশ্বাস।
ধোঁয়া।
কাঁটা।
তৃণের গ্রামীণতা।
বাতাস।
হঠাৎ চমকে ওঠা কিছু স্বপ্নের হাড়!
নতুন জন্মের শব্দ।
উড়ে যাওয়া ডানার খাম্বাজ!
রাত্রি।
নৈঃশব্দ্য।
ধ্বনিত বিপ্লব।
নির্মোহ সঙ্গীত।
মাড়িয়ে যাওয়া মাটির কঙ্কাল।
দুঃখী ধুলো!
শিরস্ত্রাণের উত্তরাধিকার।
বাষ্পীয় বীজ।
মৌসুমী মেরুদণ্ড!
রক্তছাপ।
যুদ্ধ।
প্রস্তরতা।
স্বপ্ন।
লাল সংসার।
নৈঃসঙ্গ্য।
নগরের ডাল।
পুনরাবৃত্ত রঙ।
দলবাঁধা ঘুম।
ক্রমাগনন ছায়া।
ছুঁড়ে ফেলা শ্রম।
বৃষ্টি।
সূর্য।
সময়ের গোলক পৃথিবী! সন্ন্যাস।
সৃষ্টি।
চৈতন্য।
একটি পথ!
ফুরিয়ে যাওয়া পায়ের মৃত্যু!

সর্বশেষ সংবাদ