বাংলা ফন্ট

চন্দন চৌধুরীর কবিতা

14-06-2018

 চন্দন চৌধুরীর কবিতা

অথচ তমাল

একমাত্র তমালগাছ ছাড়া আর কেউ মনে রাখেনি আমায়।
ওই যে হারমোনিয়ামের রিড, যার আওয়াজ পৌঁছে যেত আসপিয়াদের বাড়ি; আজ আর কানে বাজল না সেই সুর। সেই কমলালেবু, যার অর্ধেকটা খাওয়ার জন্য বিকেলভর কেঁদেছিলাম, তার ঘ্রাণও আসছে না নাকে।
আর যিশুর নামটা, প্রথম শুনতেই মনে হয়েছিল একজন হাড় জিরজিরে মানুষ, যে নিজের ডাকনাম খুঁজে ফিরছিল পৃথিবীতে; না পেয়ে নিজেই বিদ্ধ হয়েছিল নিজের পেরেকে। এইসব পোষা স্মৃতি, যেকোনো লোভেই আমাকে মনে রাখেনি।
মোটেও মনে রাখেনি বেণীকরা মেয়েরা; যারা উঠোনে আমাদের চুরি-করা মন নিয়ে ঘুরে বেড়াত আর ভাবত শুধুমাত্র তারাই উঠে আসবে আমাদের সময়ের শোকেসে।
পুরো সন্ধ্যা আমি এইসব ভাবতে ভাবতে নষ্ট করে, করে ফেলি গ্রামে ফেরার সমস্ত আয়োজন। আর খুঁজতে থাকি সেই তমালগাছটাকে। যার ডালে আত্মহত্যা করেছিল আমার ছেলেবেলার আকাশ।

সর্বশেষ সংবাদ