বাংলা ফন্ট

ফিরে দেখা ২০১৭

01-01-2018
নিজস্ব প্রতিবেদক ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম

 ফিরে দেখা ২০১৭
ঢাকা: নানা ঘটনা-দুর্ঘটনা, আলোচনা-সমালোচনার বছর ছিল ২০১৭। যুদ্ধ, রাজনীতি, অর্থনীতি, খেলাধূলা থেকে শুরু করে শিল্প, সাহিত্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, বিনোদন সব ক্ষেত্রেই নানাভাবে আলোচিত ছিল বিদায়ী বছরটি। তবে সবকিছু ছাপিয়ে এ বছরটিও রাজনৈতিক ঘটনাবহুল। ২০১৭ সাল নিয়ে ‘ফিরে দেখা ২০১৭: আন্তর্জাতিক অঙ্গন’।

ঘটনাবহুল মধ্যপ্রাচ্য
২০১৭ সালে পুরোটা সময়জুড়েই যথারীতি টানটান উত্তেজনায় মধ্যপ্রাচ্য। জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ট্রাম্পের স্বীকৃতিতে জন্ম দিয়েছে, নতুন সঙ্কট। এছাড়া, আইএস-বিরোধী লড়াই, সৌদি-ইরান দ্বন্দ্ব, কাতার সঙ্কট, কুর্দিস্তানের স্বাধীনতা আন্দোলনসহ বেশ কিছু ঘটনা মরুর বুকে উত্তাপ ছড়িয়েছে।

জেরুজালেম: ইসরাইল-ফিলিস্তিন আগুনে ঘি
বছরের শেষপ্রান্তে জেরুজালেমকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত মধ্যপ্রাচ্য। বেলফোর ঘোষণার শতবর্ষ পূর্তির বছরই, জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেইসঙ্গে ইসরাইলের রাজধানী তেলআবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তরের সিদ্ধান্তের কথা জানান তিনি।

এরপরই মুসলিম বিশ্বসহ পৃথিবীজুড়ে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। এমনকি আমেরিকানরাও ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়। বিরোধিতা জানায় যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বাকি সদস্যরাষ্ট্রগুলো। এমনকি ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানীর স্বীকৃতি দেয় ওআইসি। এর প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রের পথ ধরে ইসরায়েলও সরে আসে ইউনেস্কো থেকে।

অবশেষে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ ভোটের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তকে প্রত্যাখ্যান করে। যদিও ভোটাভুটির আগেই জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হেইলি হুমকিপত্র পাঠান সাধারণ পরিষদের সব সদস্যের কাছে। সেখানে বলা হয়, জেরুজালেম ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যেসব দেশ ভোট দেবে তাদের দেখে নেবে ট্রাম্প সরকার।

যুক্তরাষ্ট্র না করলেও হঠাৎ করেই ২৪ ডিসেম্বর জেরুজালেমে দূতাবাস স্থানান্তরের ঘোষণা দিয়েছে গুয়েতেমালা। এ নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। জেরুজালেম ও আরব বিশ্ব ইস্যুতে আশেকা ইরশাদ বলেন, জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানীর স্বীকৃতিকে অনেকেই ‘মার্কিন-ইসরাইল-সৌদি চক্রের’ কাজ বলে মনে করেন। ‘সৌদির রাজনীতিতে ছোট ছোট পরিবর্তনগুলোর প্রতীকী গুরুত্ব অবশ্যই রয়েছে। তবে বাস্তবে এগুলো কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা সময়ই বলবে। এগুলোর পাশাপাশি আগামী সময়টাতে নারী অধিকার ও মানবাধিকারের ক্ষেত্রে প্রশাসনের মৌলিক পর্যায়েও যদি পরিবর্তন আসে তখনই একে ইতিবাচক বলা যাবে।

কাতার সঙ্কট
সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন ও ইরানের সঙ্গে মিত্রতা বাড়ানোর অভিযোগে ৫ জুন কাতারের উপর সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং মিশর বাণিজ্য ও কূটনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। যদিও বরাবরই সেসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে কাতার। এতে অনেকটাই বিপাকে পড়ে কাতার। নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে সৌদি আরব যেসব শর্ত দেয়, এর মধ্যে রয়েছে সংবাদ মাধ্যম আলজাজিরা বন্ধ করে দেয়া। মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতিতে এটি একটি সুদূরপ্রসারী ঘটনা। সৌদির নিষেধাজ্ঞার পরিপ্রেক্ষিতে কাতারের পাশে দাঁড়ায় ইরান ও তুরস্ক।

সৌদি প্রশাসন ও রাজনীতি
এ বছর সৌদি আরবের রাজপরিবারের ক্ষমতার ধারা, প্রশাসন আর রাজনৈতিক অবস্থানে ঘটেছে চোখে পড়ার মতো সব পরিবর্তন। নারীদের গাড়ি চালানোর স্বাধীনতা, স্টেডিয়ামে খেলা দেখার অনুমতি, দীর্ঘ ৩৫ বছর পর অবশেষে সিনেমা হল চালুর সিদ্ধান্ত… এ তো কেবল শুরু!

ভাতিজাকে সরিয়ে বাদশাহ সালমান নিজের ছেলে মোহাম্মদকে যুবরাজ ঘোষণার পর থেকেই মূলত এই পরিবর্তনগুলো আসতে থাকে। একই সঙ্গে মন্ত্রিসভা থেকে বহু অভিজ্ঞ মন্ত্রীকে অবসর দিয়ে সেই পদ অন্যদের দেয়া হয়। ইসলামবিদ্বেষী মনোভাব ছড়ানো ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রথম বিদেশ সফর সৌদি এ বছর আরবেই। সফরে বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠা, স্থিতিশীলতা এবং আরব বিশ্বে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য তাকে সৌদির সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননাও দেয়া হয়।

সৌদি আরবকে সব ধর্মের মানুষের জন্য উন্মুক্ত ঘোষণার পাশাপাশি বহুযুগের কট্টরপন্থি ওয়াহাবি ইসলাম থেকে সরে ‘মধ্যপন্থি ইসলাম’ গ্রহণের ঘোষণা দেন যুবরাজ। অন্যদিকে যুবরাজকে প্রধান করে দুর্নীতি দমন কমিটি গঠনের কয়েক ঘণ্টার মাথায় ১১ প্রিন্স ও ৪ মন্ত্রীসহ কয়েক ডজন সাবেক মন্ত্রী-ব্যবসায়ীকে আচমকা গ্রেপ্তার, পরদিন ইয়েমেন সীমান্তের কাছে অনুসন্ধান কাজ শেষে ফেরার পথে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় দলবলসহ এক প্রিন্স নিহত, তার ২৪ ঘণ্টা না পেরোতেই গ্রেপ্তার অভিযানে আরেক প্রিন্সের মৃত্যু, শেষে পাঁচতারকা হোটেলে মেঝেতে ঘুমানোর শাস্তি দিয়ে শত বিলিয়ন ডলার জরিমানায় আটক প্রিন্সদের মুক্তিদান– এমন অনেকগুলো ঘটনা একসঙ্গে ঘটতে দেখল বিশ্ব।

ইরাক-সিরিয়ায় কোণঠাসা আইএস
২০১০ সালে মধ্যপ্রাচ্যে শুরু হয় কথিত আরব স্প্রিং। লাখ লাখ মানুষের বিক্ষোভের মুখে ইয়েমেন, তিউনিশিয়া ও মিসরে সরকার পতন হয়। সিরিয়ায়ও নড়ে ওঠে প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের মসনদ। কিন্তু তিনি টিকে থাকেন ক্ষমতায়। ২০১১ সাল থেকে সিরিয়ায় শুরু হয় আসাদবিরোধী সশস্ত্র আন্দোলন। এ আন্দোলনকে সমর্থন জানায় যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি দেশ। অভিযোগ রয়েছে, আসাদবিরোধী এসব বিদ্রোহীকে অস্ত্রও সরবরাহ করে যুক্তরাষ্ট্র। পরে এ বিদ্রোহী সংগঠনগুলো থেকে জন্ম নেয় একটি ভয়ংকর সন্ত্রাসী গোষ্ঠী। এদের সবাই আইএস বা ইসলামিক স্টেট নামে চেনে। এরা সিরিয়া ও ইরাকের বিস্তীর্ণ অঞ্চল দখল করে নেয়। কয়েক বছর ধরে এরা বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে হামলা চালিয়েছে। তবে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও বিভিন্ন আরব দেশের প্রতিরোধের মুখে তারা কোণঠাসা হয়ে পড়েছে। ২০১৭ সাল ছিল সিরিয়া ও ইরাকে আইএসের জন্য সবচেয়ে খারাপ বছর। তাদের বিস্তীর্ণ অঞ্চল সরকারি বাহিনীর কাছে হারাতে হয়েছে।

ইয়েমেন ও লেবানন সঙ্কট
ইয়েমেনে ইরান সমর্থিত হুথিদের বিরুদ্ধে ২ বছরের সৌদি অভিযান অনেকটাই ব্যর্থ। চলতি বছর রিয়াদে কয়েক দফা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় হুথিরা। বিশ্বাসঘাতকতার অভিযোগ তুলে হত্যা করা হয়, ইয়েমেনের সাবেক প্রেসিডেন্ট আলি আব্দুল্লাহ সালেহকে। নভেম্বরে লেবাননের শিয়াগোষ্ঠী হেজবুল্লাহকে ঘিরে দেশটিকে নিয়ে শুরু হয় নতুন মেরুকরণ। অভিযোগ ওঠে, সৌদি আরবের চাপেই পদত্যাগের ঘোষণা দেন, লেবানিজ প্রধানমন্ত্রী সাদ আল হারিরি। শেষমেষ ফ্রান্সের মধ্যস্থতায় সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারও করেন তিনি।

কুর্দি স্বাধীনতার গণভোট
স্বাধীন কুর্দি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার দাবিকে ঘিরে উত্তেজনা ছড়িয়েছে ইরাকে। সেপ্টেম্বরের গণভোটে স্বাধীনতার পক্ষে রায় দিলেও, শেষমেষ কিরকুকসহ কুর্দি অধুষ্যিত অনেক এলাকাই এখন কেন্দ্রীয় সরকারের নিয়ন্ত্রণে।

ইরান-ইরাক সীমান্তে ভূমিকম্প
১২ নভেম্বর ইরান ও ইরাকের সীমান্ত এলাকায় এক শক্তিশালী ভূমিকম্পে ৫৩০ জন নিহত হন। আহত হন ৭ হাজারের বেশি মানুষ। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পটির মাত্রা ছিল ৭.৩। এতে দুই দেশের ৭০ হাজারের বেশি মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েন। ভূমিকম্পের কেন্দ্র ইরাকে থাকলেও অপেক্ষাকৃত বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ইরান। ইরানের পশ্চিমাঞ্চলীয় কেরমানশাহ প্রদেশ সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

রাখাইনে মায়ানমারের সেনা অভিযান
২৫ আগস্ট থেকে রাখাইন রাজ্যে মায়ানমার সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে নতুন করে অভিযান শুরু করে। এ সময় কয়েক হাজার রোহিঙ্গাকে হত্যা করা হয়। রোহিঙ্গাদের সহস্রাধিক বাড়িঘরে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসতে বাধ্য হন প্রায় সাড়ে ৬ লাখ রোহিঙ্গা। কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্পে তাদের ঠাঁই হয়েছে।

বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা তাদের ওপর চালানো হত্যা, ধর্ষণ, নির্যাতনের লোমহর্ষক বর্ণনা দিয়েছেন। পালিয়ে আসাদের অনেকেই ছিলেন গুলিবিদ্ধ, অগ্নিদগ্ধ। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে তাদের চিকিৎসা দেওয়া হয়। রোহিঙ্গাদের ওপর যখন এ ধরনের নির্যাতন চালানো হচ্ছিল, তখন মায়ানমারের শান্তিতে নোবেল বিজয়ী নেত্রী অং সান সু চি নীরবতা পালন করেছেন। পরে তিনি বলেন, ঠিক কী কারণে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে যাচ্ছেন, তা তিনি জানতে চান। সেনাবাহিনীকে দোষারোপ করা থেকেও বিরত থাকেন তিনি। রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের জেরে আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়ে মায়ানমার। দেশটির সেনাসদস্যদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্র।

হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প যুগ
বছরজুড়েই আলোচনায় ছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ক্যাসিনো ব্যবসায়ী থেকে নাম লেখান যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিতে। সবাইকে চমকে দিয়ে গত ১৭ থেকে ২১ জানুয়ারি তিনি বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট পদে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। ‘উই উইল মেইক আমেরিকা স্ট্রং এগেইন’ স্লোগান দিয়ে ক্ষমতায় এলেও অভিবাসী, মুসলমান ও নারী বিদ্বেষী নানান বক্তব্য ও কর্মকাণ্ড করা ডোনাল্ড ট্রাম্প বছরজুড়েই সমালোচনায় ছিলেন। সাত মুসলিম দেশকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া ডোনাল্ড ট্রাম্প বছরের শেষে এসে জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী স্বীকৃতি দিয়ে সারা বিশ্বে বিক্ষোভ, আন্দোলন আর সমালোচনার ঝড় তুলেছেন।

ম্যানচেস্টারে বোমা হামলা
২২ মে যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টারে মার্কিন সংগীতশিল্পী আরিয়ানা গ্র্যান্ডের কনসার্টে সন্ত্রাসী হামলা হয়। বাড়িতে তৈরি বোমা দিয়ে চালানো এ হামলায় অন্তত ২৩ জন নিহত হন। আহত হন পাঁচ শতাধিক। ওই কনসার্টে ১৪ হাজারের বেশি দর্শকস্রোতা অংশ নেন। হতাহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছেন। ২০০৫ সালের জুলাইয়ে লন্ডনে বোমা হামলার পর এটাই ছিল যুক্তরাজ্যে সবচেয়ে বড় বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা। হামলার দায় স্বীকার করে সিরিয়া ও ইরাকভিত্তিক কথিত জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)। হামলাকারী ছিল লিবীয় বংশোদ্ভূত সালমান আবেদি।

যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি
বছরজুড়ে যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে উত্তেজনা বেড়েছে। ২০ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিছুদিন পর ১১ ফেব্রুয়ারি ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া। ওই ক্ষেপণাস্ত্র মূল ভূখণ্ডের ওপর দিয়ে জাপান সাগরে গিয়ে পড়ে। জুলাইয়ের শুরুতে উত্তর কোরিয়া আবারও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায়। এটি ছিল দেশটির প্রথম আন্তঃদেশীয় দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র।

উত্তর কোরিয়া দাবি করে, তারা এমন একটি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে, যা যুক্তরাষ্ট্রের যে কোনো স্থানে আঘাত হানতে সক্ষম। এতে উভয় দেশের মধ্যে উত্তেজনা বাড়তে থাকে। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ও হয় ট্রাম্পের। উত্তেজনার মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপান সফর করেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়াও চালায় যুক্তরাষ্ট্র।

ছয় মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা
অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বিশেষ করে মুসলিম অভিবাসনপ্রত্যাশীদের প্রতি কঠোর হওয়ার অঙ্গীকার নিয়ে ক্ষমতায় এসেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ক্ষমতায় এসেই তিনি ছয় মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। তার এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে আন্দোলন-বিক্ষোভ হলেও শেষ পর্যন্ত ৪ ডিসেম্বর দেশটির সুপ্রিমকোর্ট তা অনুমোদন করেন। এতে চাদ, ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সিরিয়া ও ইয়েমেনের নাগরিকরা যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের অধিকার হারান।

কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার জন্য গণভোট
স্পেনের আংশিক-স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল কাতালোনিয়া অক্টোবরে স্বাধীনতার ঘোষণা দিলেও যথেষ্ট সমর্থনের অভাবে শেষ পর্যন্ত তাদের আন্দোলন ব্যর্থ হয়ে যায়। বরং আগে থাকা স্বায়ত্তশাসনটাও হারিয়ে বসে অঞ্চলটি। স্পেন সরকার একদিকে আঞ্চলিক সংসদ বিলুপ্ত করে কাতালোনিয়ায় কেন্দ্রীয় শাসন জারি করে। অন্যদিকে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে কাতালান প্রেসিডেন্ট কার্লেস পুজদেমনসহ বহিস্কৃত নেতারা পালিয়ে যান দেশ ছেড়ে। পরে অবশ্য তারা ফিরে আত্মসমর্পণ করেন।

জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট পদ থেকে মুগাবের পদত্যাগ
নভেম্বরের মাঝামাঝিতে জিম্বাবুয়ের রাজপথ দখলে নিয়ে ৯৩ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবেকে সপরিবারে গৃহবন্দী করে সেনাবাহিনী। গৃহবন্দী অবস্থায় সেনাবাহিনী ও নিজ দলের চাপে পদত্যাগের ঘোষণা দিতে রাজি হলেও জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিতে গিয়ে বলেন, ডিসেম্বরের আগে পদ ছাড়বেন না তিনি।

ক্ষমতাসীন দল প্রেসিডেন্ট পদ থেকে অভিসংশনের হুমকি দিলে মুগাবে অনেকটা হঠাৎ করেই ২১ নভেম্বর ৩৭ বছরের শাসনের অবসান ঘটিয়ে পদত্যাগ করেন। মুগাবের জায়গায় প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন তার হাতেই বরখাস্ত সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নাঙ্গাগওয়া। মুগাবের ক্ষমতাচ্যুতি চেষ্টায় তেমন কোন রক্তপাত না ঘটায় একে ইতিবাচক হিসেবে দেখে আশেকা বলেন, নতুন সরকারের কাজকর্ম জনগণের বুঝে উঠতেই আগামী বছরের অনেকটা কেটে যেতে পারে। তবে প্রথমদিক হিসেবে অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক উন্নয়নের কিছু আশা রয়েছে।

ভারতীয় কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী
১১ ডিসেম্বর সর্বসম্মতিক্রমে ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের সভাপতি নির্বাচিত হন রাহুল গান্ধী। দীর্ঘদিন ধরে রাহুল কংগ্রেসের সহ-সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তার মা সোনিয়া গান্ধী ১৯ বছর ধরে কংগ্রেস সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। এর আগে গান্ধী-নেহরু পরিবারের পাঁচ সদস্য এ পদে থেকেছেন। এরা হলেন- মতিলাল নেহরু, জওহরলাল নেহরু, ইন্দিরা গান্ধী, রাজিব গান্ধী ও সোনিয়া গান্ধী। সেই ধারা বজায় রেখেই রাহুল গান্ধী হলেন গান্ধীপরিবারের ষষ্ঠ সভাপতি।

নওয়াজ শরিফের পদত্যাগ
২৮ জুলাই আদালতের রায়ে ‘অযোগ্য’ ঘোষিত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে সরে দাঁড়ান পাকিস্তান মুসলিম লিগের প্রধান নওয়াজ শরিফ। দুর্নীতির মাধ্যমে সম্পদের পাহাড় গড়ার অভিযোগ নিয়ে উচ্চপর্যায়ের তদন্তের পর পাকিস্তানের সুপ্রিমকোর্ট তাকে প্রধানমন্ত্রী পদে অযোগ্য ঘোষণা করেন। পানামা পেপারস মামলায় ওই রায়ের ১ ঘণ্টা পর পদত্যাগের এ ঘোষণা দেন তিনি। তবে নওয়াজ ও তার পরিবার দুর্নীতির এসব অভিযোগ অস্বীকার করে। পাকিস্তানের ইতিহাসে কোনো প্রধানমন্ত্রীই পূর্ণ মেয়াদে ক্ষমতায় থাকতে পারেননি। নওয়াজ শরিফের ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম হয়নি।

প্যারাডাইজ পেপারস কেলেঙ্কারি
পানামা পেপারসের রেশ শেষ না হতেই, বারমুডাভিত্তিক ল ফার্ম প্রতিষ্ঠান অ্যাপলবির ১ কোটি ৩৪ লাখ গোপন নথিতে ফাঁস হয় বিভিন্ন দেশের বহু প্রভাবশালীর গোপন সম্পদের খবর। ‘প্যারাডাইস পেপারস’ হিসেবে পরিচিতি পাওয়া এসব নথিতে ব্রিটেনের রানী এলিজাবেথ, প্রিন্স চার্লস, মার্কিন মন্ত্রী উইলবার রসসহ অনেকের নামই এসেছে। অ্যাপল, নাইকি ও উবারসহ প্রায় ১০০ বহুজাতিক কোম্পানির কর পরিকল্পনার বিস্তারিত প্রকাশ পেয়েছে এসব নথিতে। কানাডার লিবারেল পার্টির প্রধান এবং যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির সাবেক ডেপুটি চেয়ারম্যান ও অন্যতম অর্থদাতা লর্ড অ্যাশক্রফটের অফশোর বিনিয়োগের তথ্যও ফাঁস হয়েছে।

দুতার্তের ‘ড্রাগ ওয়ার’
মাদকের বিরুদ্ধে কার্যত যুদ্ধ ঘোষণা করেন ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুতার্তে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে ২০১৭ সালে ফিলিপাইনে কয়েক হাজার মানুষ নিহত হয়েছে। অবৈধ মাদক ব্যবসা পুরো বন্ধ করার জন্য তার এই অভিযানে বিপুল সংখ্যক প্রাণহানিতে আন্তর্জাতিকভাবে ব্যাপক সমালোচিত হয়েছেন দুতার্তে। বিচারবহির্ভূত হত্যার অনুমোদন দিয়ে তিনি সমালোচিত হন।

জাতিসংঘে গুতেরেস
১ জানুয়ারি ২০১৭ জাতিসংঘের নবম মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন পর্তুগালের সাবেক প্রধানমন্ত্রী অ্যান্তোনিও গুতেরেস। কোনো দেশের সাবেক সরকারপ্রধান হিসেবে তিনিই প্রথম জাতিসংঘের শীর্ষ পদে নিযুক্ত হলেন। পাঁচ বছর মেয়াদে তিনি এ দায়িত্ব পালন করবেন। জাতিসংঘের মহাসচিব হিসেবে সারা বছরই তিনি ছিলেন মিডিয়ার কেন্দ্রবিন্দুতে। রোহিঙ্গা শরণার্থী ইস্যুতেও তিনি সোচ্চার।

বিশ্বজুড়ে সাইবার হামলা
বিশ্বের সবচেয়ে বড় সাইবার হামলার মুখোমুখি হওয়ার ঘটনা ঘটে এ বছরের ১২ মে। এক রাতের ব্যবধানে বিশ্বের প্রায় প্রতিটি প্রান্তে ছড়িয়ে যায় ওয়ানাক্রাই নামক ম্যালওয়ার। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৫০টি দেশের কম্পিউটার ব্যবস্থায় হানা দেয় হ্যাকাররা। হ্যাকিংয়ের শিকার দেশগুলোর তালিকায় ছিল যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন, রাশিয়া, স্পেন, ইতালি ও তাইওয়ানের মতো উন্নত প্রযুক্তির রাষ্ট্র। বিশ্বব্যাপী এ সাইবার হামলায় তিন লক্ষাধিক কম্পিউটার আক্রান্ত হয়। এ আক্রমণ ঘটে সাধারণত ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিতে বিশেষ লিংকযুক্ত ফিশিং মেইল (প্রতারণামূলক মেইল) থেকে।

রোবট নাগরিক সোফিয়া
২৫ অক্টোবর ২০১৭ সৌদি আরব ‘সোফিয়া’ নামের একটি রোবটকে পূর্ণ নাগরিকত্ব প্রদান করে। রোবটকে নাগরিকত্ব প্রদানের ঘটনা বিশ্বে এটাই প্রথম। রোবট হলেও সোফিয়া মুখে ৬২ ধরনের অভিব্যক্তি ফোটাতে পারে। সোফিয়াকে তৈরি করেছে হংকংয়ের কোম্পানি হ্যানসন রোবটিকস। প্রকৌশলী ও ডিজাইনারদের নেতৃত্বে ছিলেন ড. ডেভিড হ্যানসন। ৬-৯ ডিসেম্বর ২০১৭ ঢাকায় অনুষ্ঠিত ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৭’ মেলায় সোফিয়াকে আনা হয়।

বরখাস্ত ইংলাক সিনাওয়াত্রা
থাইল্যান্ডের প্রথম নির্বাচিত নারী প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রা। ৭ মে ২০১৪ ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে সাংবিধানিক আদালত তাকে বরখাস্ত করে। ২০১৫ সালে জান্তা সমর্থিত সরকার ইংলাককে ইমপিচ করার পাশাপাশি পাঁচ বছরের জন্য রাজনীতি থেকে নিষিদ্ধ করে। এ ছাড়া ২০১৭ সালে কেলেঙ্কারিতে ফেঁসেছেন ভারতের বিতর্কিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংহ। দুই শিষ্যকে ধর্ষণের অপরাধে তাকে দুই মামলায় ১০ বছর করে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেয় আদালত।

ইউনেস্কো ছাড়ল যুক্তরাষ্ট্র
১২ অক্টোবর ২০১৭ জাতিসংঘ শিক্ষা, বিজ্ঞানও সংস্কৃতি ইউনেস্কো থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। ঘোষণা অনুযায়ী ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। এরপরে এক বিবৃতিতে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গী হওয়ার ঘোষণা দেন। এর আগে ৩১ ডিসেম্বর ১৯৮৪ সালে আরও একবার, তৎকালীন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ডো রিগানের অধীনে আর্থিক অব্যবস্থাপনা ও মার্কিনবিরোধী অবস্থানের অভিযোগ তুলে সংস্থাটি থেকে বেরিয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র।

ফ্রান্সের নতুন প্রেসিডেন্ট
১৪ মে ২০১৭ ফ্রান্সের ২৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন ইমানুয়েল ম্যাত্রেঁদ্ধা। ৩৯ বছর বয়সী সাবেক ব্যাংকার ম্যাক্রোঁ হলেন বিপ্লবোত্তর ফ্রান্সের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ প্রেসিডেন্ট। ফ্রান্সের দিগিবজয়ী বীর সম্রাট নেপোলিয়ন বোনাপার্টের পর সবচেয়ে তরুণ বয়সে দেশটির ক্ষমতার শীর্ষে উঠেন মাত্র তিন বছর আগেও জনসাধারণের কাছে অপরিচিত ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। তাই তাকে বলা হচ্ছে ‘ফ্রান্সের নতুন নেপোলিয়ন’।

ব্রেক্সিট বিল
যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ২৩ জুন ২০১৬ সালে। ১ মার্চ ২০১৭ ও ৭ মার্চ ২০১৭ হাউস অব লর্ডসের অনির্বাচিত সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যরা দুই দফায় ওই বিলে সংশোধনীর পক্ষে ভোট দেন। এমন পরিস্থিতিতে ব্রেক্সিট আলোচনা শুরুর ব্যাপারে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মের পরিকল্পনা হুমকির সম্মুখীন হয়। তবে শেষ পর্যন্ত কোনো প্রকার সংশোধনী ছাড়াই ১৩ মার্চ ২০১৭ ব্রেক্সিট বিল পার্লামেন্টে চূড়ান্তভাবে পাস হয়।

দেশে দেশে জঙ্গি হামলা
২০১৭ সালের প্রথম প্রহরে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে একটি নাইট ক্লাবে এক বন্দুকধারী বিদেশি আইএস জঙ্গি পর্যটকসহ ৩৯ জনকে গুলি করে হত্যা করে। ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে একটি মাজারে আত্মঘাতী হামলায় ৮০ জন নিহত হন। মে মাসে যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টারে আরিয়ানা গ্রান্ডের কনসার্টে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত হয় ২২ জন। আগস্টে স্পেনের পর্যটন নগরী বার্সেলোনায় মানুষের ভিড়ে গাড়ি চালিয়ে দিয়ে ১৪ জনকে হত্যা করা হয়। অক্টোবরে সোমালিয়ার মোগাদিসুতে ট্রাকবোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা ছাড়িয়ে যায় ৫০০। পরের মাসে মিসরের সিনাই উপত্যকায় মসজিদে বন্দুকধারীদের হামলায় তিন শতাধিক মুসল্লির মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

রোনালদোর ব্যালন ডিঅর
টানা দ্বিতীয় আর সাকুল্যে পঞ্চমবারের মতো ব্যালন ডিঅর লাভ করেন রিয়াল মাদ্রিদ তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। তিনি এর আগে ২০০৮, ২০১৩, ২০১৪ এবং ২০১৬ সালে এ পুরস্কার লাভ করেন। এ ছাড়া ২০১৬-১৭ মৌসুমের ইউরোপীয় গোল্ডেন বুট লাভ করেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি। তিনি ইউরোপের শীর্ষ লিগগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ গোল করে এ পুরস্কার লাভ করেন।

কেনেডি হত্যার গোপন নথি
যুক্তরাষ্ট্রের ৩৫তম প্রেসিডেন্ট ছিলেন ‘জন এফ কেনেডি’। প্রেসিডেন্ট পদে থাকা অবস্থায় ২২ নভেম্বর ১৯৬৩ টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের ডালাসে আততায়ীর গুলিতে নিহত হন কেনেডি। জাতীয় আর্কাইভে রক্ষিত ওই হত্যা সংক্রান্ত গোপন ২,৮৯১টি নথি ২৬ অক্টোবর ২০১৭ প্রকাশ করে মার্কিন সরকার। ২৬ অক্টোবর ২০১৭ সাল— ওই দিনই প্রকাশিত হয় কেনেডি হত্যা সংশ্লিষ্ট অধিকাংশ গোপন নথি। তবে শেষ মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর চাপে কিছু নথি অপ্রকাশিত রাখা হয়।

ফার্ক বিদ্রোহের অবসান
কিউবা ও নরওয়ের মধ্যস্থতায় এবং ভেনেজুয়েলা ও চিলির সহযোগিতায় চার বছর ধরে আলোচনার পর ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬ কলম্বিয়া সরকার ও দেশটির বিদ্রোহী নেতা রেভ্যুলিউশনারি আর্মড ফোর্সেস অব কলম্বিয়ার গেরিলাদের মধ্যে স্বাক্ষরিত হয় ঐতিহাসিক শান্তিচুক্তি। ৩০ নভেম্বর ২০১৬ কলম্বিয়ার কংগ্রেসে অনুমোদিত হয়। বিদ্রোহী গোষ্ঠীর নিরস্ত্রীকরণ সম্পন্ন শেষে ১৫ আগস্ট কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ৫৩ বছর ধরে চলা দেশটির গৃহযুদ্ধ অবসানের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন।

অষ্টম মহাদেশ জিল্যান্ডিয়া
২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে বিজ্ঞানীরা জানালেন, নতুন এক বিস্তৃত এলাকার সন্ধান পাওয়া গেছে, যা অষ্টম মহাদেশ হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার সব শর্তই পূরণ করছে। বিজ্ঞানীদের সন্ধান পাওয়া সর্বকনিষ্ঠ, সবচেয়ে ক্ষুদ্র ও প্রায় নিমজ্জিত নতুন এ মহাদেশের নাম হবে ‘জিল্যান্ডিয়া’। সম্প্রতি দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সমুদ্রে তলিয়ে যাওয়া মহাদেশের খোঁজে নয় সপ্তাহের অভিযান শেষে প্রথমবারের মতো এ মহাদেশ সম্পর্কে পদ্ধতিগত তথ্য উপস্থাপন করেন বিজ্ঞানীরা। আকারে এটি ভারত উপমহাদেশের প্রায় সমান।

হাতে লেখা বৃহত্তম কোরআন
মিসরের রাজধানী কায়রোর উত্তরাঞ্চলের অধিবাসী শিল্পী সাদ মোহাম্মদ পবিত্র কোরআনের হাতে লেখা সবচেয়ে বড় সংস্করণ প্রকাশ করেন। তিনি দীর্ঘ তিন বছর ধরে ৭০০ মিটার বা ২,২৯৬ ফুট দৈর্ঘ্যের কাগজের বান্ডেলে এ কোরআনের আয়াতসমূহ লেখেন। এর আগে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে সবচেয়ে বড় ছাপানো কোরআনের রেকর্ড থাকলেও হাতে লেখা কিংবা আঁকা কোরআনের কোনো বিশ্বরেকর্ড ছিল না।

প্রথম কৃত্রিম ভ্রূণ তৈরি
২০১৭ সালে প্রথমবারের মতো ইঁদুরের ভ্রূণ তৈরিতে সফল হন বিজ্ঞানীরা। যুক্তরাজ্যের ক্যামব্রিজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা গবেষণাগারে এ ভ্রূণটি তৈরি করেন। জীবন্ত এ ভ্রূণটি তৈরি হতে সময় লাগে মাত্র চার দিন। এ ছাড়া এ বছরই বিশ্বের প্রথম থ্রিডি মানব টিস্যু বানানোর প্রিন্টার বানাতে সক্ষম হয় যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকিভিত্তিক সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠান অ্যাডভান্স সলিউশন।

ঢাকারিপোর্টটোয়েন্টিফোর.কম/এইএমএল



সর্বশেষ সংবাদ